দারুণ পারফর্মেও জয়হীন বাংলাদেশ অলিম্পিক দল


Bangladesh Vs Bahrain Olympicবঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে যশোরের শামস-উল-হুদা স্টেডিয়ামে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ৫৩ শতাংশ বল নিজেদের দখলে ধরে রাখলেও জয় পায়নি বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দল। তবে, জয়ের আশা নিয়ে মাঠে নামা বাহরাইনকেও জিততে দেয়নি রেজাউল করিম রেজার নেতৃত্বে খেলা লাল সবুজের স্বাগতিক যুবারা। ম্যাচে এগিয়ে থেকেও ১-১ গোলের সমতা নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ অলিম্পক দল।
যশোরের শামস-উল-হুদা স্টেডিয়ামে রোববার বি গ্রুপে দুই দলের ম্যাচটি ১-১ সমতায় শেষ হয়। ইউসুফ সিফাতের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। প্রথমার্ধেই জাসিম আল শেখ বাহরাইনকে সমতায় ফেরান। বিরতির পরে দারুণ পারফর্ম করেও আর কোনো গোল আদায় করে নিতে পারেনি স্বাগতিকরা।
ম্যাচের ১৮ মিনিটে গোল করে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দলকে এগিয়ে দেন ইউসুফ সিফাত। সিফাতের গোলে সহায়তা করেন রুবেল। তবে খেলার ২২ মিনিটে বাহরাইনের জসিম গোল করলে ১-১ গোলে সমতায় ফেরে সফরকারীরা। স্বাগতিকদের রক্ষণের ভুল পাসে বল পেয়ে গোল করে বাহরাইন।
বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে দুপুর পৌনে তিনটায় গ্রুপপর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাহরাইনের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দল তথা অলিম্পিক দল।
বিরতির পর আবারো আক্রমণ আর পাল্টা আক্রমণে শুরু হয় দুই দলের ম্যাচ।
মাঝমাঠে শাকিল আহমেদ আর ইব্রাহিমের দারুণ নৈপুণ্যে বলের বেশির ভাগ দখল ধরে রাখে স্বাগতিকরা। ম্যাচের ৫৯ মিনিটের মাথায় দারুণ একটি সুযোগ পেয়েছিল বাংলাদেশ অলিম্পিক দল। নিজেদের অর্ধ থেকে একাধিক প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়কে কাটিয়ে বল বাড়ান শাকিল। বাহরাইনের গোলরক্ষককে একা পেয়েও গোলের সুযোগ নষ্ট করে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দলের স্ট্রাইকার আব্দুল আজিজ।
৬৬ মিনিটের মাথায় মাসুক মিয়া জনির বাড়ানো বলে বাহরাইনের ডি-বক্সে প্রবেশ করেন বাবু। তবে, নিজের নিয়ন্ত্রণে বল রাখতে পারেননি তিনি। ৭০ মিনিটে কর্নার থেকে পাওয়া বলে কৈলাস যে শটটি নেন তা জালে জড়ানোর মতো ছিল না।
৭৩ মিনিটের মাথায় আবারো জোরালো আক্রমণে বাহরাইনের ডি-বক্সে প্রবেশ করে বাংলাদেশের যুবারা। রুবেল মিয়ার ডানপাশ দিয়ে শানানো আক্রমণে দিশেহারা প্রতিপক্ষ কোনো রকমে এ যাত্রায় বেঁচে যায়। ৮১ মিনিটে আরেকটি কর্নার থেকে বল পান লাল সবুজদের দলপতি রেজাউল করিম। হেড করলেও তা গোলবারের উপর দিয়ে বাইরে চলে যায়।
দ্বিতীয়ার্ধে দারুণভাবে জমে উঠা লড়াইয়ে এগিয়ে থাকে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দল। অরূপ বৈদ্য, তকলিশ, কেস্ট কুমার আর রুবেল মিয়াদের অসাধারণ পারফর্মে বাহরাইনের রক্ষণ বারবার কেঁপে উঠে। ম্যাচের ৮৮ মিনিটে আতিকুর রহমান ফাহাদের পরিবর্তে মাঠে বদলি হিসেবে প্রবেশ করেন ইমন।
৯০ মিনিটের মাথায় বাহরাইনের আতাহার আলি লাল কার্ড দেখে মাঠের বাইরে গেলে দশজনের দলে পরিণত হয় সফরকারী দেশটি। ম্যাচের বাকি সময়ে আর কোনো গোল না হলে ১-১ গোলের সমতা নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ অলিম্পিক দল এবং বাহরাইন।
এর আগে টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে বাংলাদেশ জাতীয় দল জয় নিয়ে তাদের মিশন শুরু করে। শ্রীলঙ্কাকে ৪-২ গোলে হারায় মামুনুল ইসলামের বাংলাদেশ।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s