GM-Kader, quaderজাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী জিএম কাদের বলেছেন, ‘মানুষ এখন ভোট প্রদানে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে। কেন্দ্রে যাওয়ার আগেই ভোট প্রদান শেষ হয়ে যাচ্ছে।’ সোমবার বিকেলে ঠাকুরগাঁও জেলা পরিষদ মিলয়নাতনে জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
জিএম কাদের বলেন, ‘মানুষ স্বাধীনভাবে কথা বলতে পারছে না। সরকার মানুষের বাক স্বাধীনতা কেড়ে নিয়েছে। দেশ এখন এক দলীয় শাসন ব্যবস্থায় চলছে। দেশের শূন্যস্থান পূরণের জন্য জাতীয় পার্টির কোনো বিকল্প নেই।’
তিনি বলেন, ‘মানুষের ভোটের অধিকার ও বাক স্বাধীনতাসহ অন্যান্য মৌলিক অধিকার প্রতিনিয়ত হরণ করা হচ্ছে। প্রশাসনের প্রতিটি স্তরে দুর্নীতি ক্যান্সারের মত ছড়িয়ে পড়ছে, যা রাষ্ট্রযন্ত্রকে দ্রুত জনবিরোধী করে তুলছে। আমাদের প্রত্যাশা অচিরেই পরিত্রাণ পাবো। কারণ রাত যত গভীর হয় ভোরের আলো ততো নিকটবর্তী হয়।’
জাপার এই প্রেসিডিয়াম সদস্য বলেন, ‘দেশে দমন নির্যাতনের মাত্রা প্রতিনিয়ত বাড়ছে। পাকিস্তান আমলে আমাদের প্রতি যে বৈষম্য, বঞ্চনা ও অধিকার হরণ করা হয়েছিল তা থেকে মুক্তির জন্যই স্বাধীনতা যুদ্ধ। যে দলটি সবসময় সংগ্রামের কথা বলতো, যে দলটির নেতৃত্ব দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু সেই দলটি আজ ক্ষমতায়। অথচ আজ আমরা কী দেখছি? বরং যেটুকু অর্জিত হয়েছিল তা থেকেও আমরা অনেক কিছু হারিয়ে ফেলছি। দারিদ্রের যাতাকলে এখনও আমরা পিষ্ট।’
জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি অ্যাডভোকেট এমএ করিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক এমপি হাফিজ উদ্দীন আহাম্মেদ, বিরোধীদলীয় হুইপ আলহাজ শওকত চৌধুরী, জাতীয় পার্টির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব ও জাতীয় যুবসংহতির সভাপতি রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক রেজাউর রাজি স্বপন চৌধুরী প্রমুখ।
এ সময় ঠাকুরগাঁওয়ের সাবেক পৌর চেয়ারম্যান এস এম সোলায়মান আলীসহ বিভিন্ন দলের দুই শতাধিক নেতাকর্মী জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেন।
এর আগে, অডিটোরিয়াম চত্বরে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করা হয়।