icc-ranking‘রাজত্ব’ হারাল শ্রীলঙ্কা। লঙ্কানদের হটিয়ে আইসিসির টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে উঠেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সবশেষ গত নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি খেলা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে ‘তুলে দিয়েছে’ অবশ্য শ্রীলঙ্কাই! রোববার দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে নিউজিল্যান্ডের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়ে শীর্ষস্থান হারিয়েছে লঙ্কানরা।
বাংলাদেশে ২০১৪ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ের পরই র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে উঠেছিল শ্রীলঙ্কা। ঠিক আরেকটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগেই আবার র‍্যাঙ্কিংয়ের ‘রাজত্ব’ হারাল তারা।
আইসিসির নতুন প্রকাশিত টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে ১১৮ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অবশ্য দুইয়ে নেমে যাওয়া শ্রীলঙ্কা ও তিনে থাকা অস্ট্রেলিয়ার রেটিং পয়েন্টও ১১৮। তবে ভগ্নাংশের হিসাবে তাদের চেয়ে এগিয়ে ক্যারিবীয়রা।
২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর থেকে এই ফরম্যাটে আটটি ম্যাচ খেলেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জিতেছে চারটিতে, যার মধ্যে গত বছরের জানুয়ারিতে জোহানেসবার্গে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ২৩২ রান তাড়া করে জয়ের বিশ্ব রেকর্ডের ম্যাচটাও আছে।
আর শ্রীলঙ্কা তাদের শেষ ছয়টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচের পাঁচটিতেই হেরেছে। সবশেষ নিউজিল্যান্ডের কাছে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ হেরে ৭ পয়েন্ট খুইয়েছে তারা। র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থান হারিয়ে যেটার চরম মূল্যও দিতে হলো ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের।
১১৮.৩৬ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে আইসিসি’র টি-টোয়েন্টি ফরমেটের সবশেষ প্রকাশিত র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষে উঠেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এ তালিকায় দুই ও তিন নম্বরে রয়েছে যথাক্রমে শ্রীলঙ্কা ও অস্ট্রেলিয়া।
শ্রীলঙ্কা ও অস্ট্রেলিয়া সমান ১১৮ রেটিং পয়েন্ট পেয়েছে। অজিদের পরেই রয়েছে এক রেটিং কম পাওয়া ইংল্যান্ড। তালিকায় পাঁচ নম্বরে রয়েছে ১১৫ রেটিংপ্রাপ্ত দক্ষিণ আফ্রিকা। ১১৪ রেটিং নিয়ে ছয় নম্বরে নিউজিল্যান্ড। আর সাত নম্বরে রয়েছে কিউইদের সমান রেটিং পয়েন্ট পাওয়া পাকিস্তান।
সবশেষ প্রকাশিত তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান দশম। ৬৯ রেটিং পয়েন্ট পাওয়া টাইগারদের উপরে রয়েছে ৮০ রেটিংপ্রাপ্ত আফগানিস্তান। আর আট নম্বরে রয়েছে ১১০ রেটিং অর্জন করা টিম ইন্ডিয়া।