leonel messiদুই সতীর্থ লুইস সুয়ারেজ আর নেইমারকে ছাড়াই কোপা দেল রে’র চলতি আসরে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করতে মাঠে নেমেছিলেন সদ্যই পঞ্চমবারের মতো ব্যালন ডি অর জেতা আর্জেন্টাইন দলপতি লিওনেল মেসি। আর মাঠেই তাকে অপমান করেন প্রতিপক্ষ এসপানিওলের ডিফেন্ডার আলভারো গঞ্জালেজ।
ডার্বি ম্যাচের প্রথম লেগে ৪-১ গোলে হারের পর নিজেদের মাঠে ফিরতি পর্বের ম্যাচটিতে ২-০ গোলের লজ্জায় ডোবে কাতালানদের নগর প্রতিদ্বন্দ্বী এসপানিওল। নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী এস্পানিওলকে দ্বিতীয় লেগে হারিয়ে ৬-১ গোলের জয় দিয়ে কোপা দেল রে’র কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে বার্সেলোনা।
প্রথম লেগের ম্যাচে উত্তেজনার পারদ এতটাই বেশি ছিল যে, দুই দলের খেলোয়াড়দের মাঝে টানেলে হাতাহাতি পর্যন্ত হয়েছে। এসপানিওলের দুই খেলোয়াড় মাঠেই দেখেছেন লাল কার্ড। বার্সার তারকা সুয়ারেজ দুই ম্যাচের জন্য হয়েছেন নিষিদ্ধ। দ্বিতীয় লেগে তেমন কিছু না হলেও মাঠে বার্সার প্রাণভোমরা মেসিকে অপমান করেছেন এসপানিওলের ডিফেন্ডার। মাঠেও বেশ কয়েকবার ফুটবলারদের মাঝে উত্তেজনা ছড়ায়।
এরই এক ফাঁকে গঞ্জালেজ মেসিকে লক্ষ্য করে ইংরেজিতে বলে উঠেন, ‘ইউ আর রিয়েলি শর্ট’! ম্যাচে গোল না পাওয়া মেসিও পাল্টা জবাব দেন ‘ইও আর রিয়েলি ব্যাড’!
খাটো হওয়ায় ছোটবেলা থেকেই খোঁটা শুনে বড় হতে হয়েছে মেসিকে। তার সেই উচ্চতা নিয়ে যখন কেউ অপমান করে বসেন, বিশ্বসেরা ফুটবলার তখন স্থীর থাকতে পারেননি। তবে, ম্যাচ শেষে মেসির এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য পাওয়া না গেলেও গঞ্জালো জানান, লিও আমার কথায় বেশ চটে গিয়েছিল। কিন্তু, আমি তাকে রাগানোর জন্য কিংবা খোঁটা দেওয়ার জন্য কথাটি বলিনি। তারপরও সে আমাকে খারাপ বলেছে। যাই হোক, ব্যাপারটি মাঠে ঘটেছে, মাঠেই তা শেষ হয়েছে।
গঞ্জালো আরও যোগ করে বলেন, আমি মেসিকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, সে আমার কথায় রাগ করেছিল কী না? জবাবে মেসি জানায়, সত্যিই সে রাগ করেছে এবং সে আমাকে আবারো খারাপ বলে। আমরা দু’জনই ব্যাপারটি মেনে নিয়েছি, হেসেছি। মাঠের ব্যাপারটি মাঠেই শেষ হতে দিন। এটা নিয়ে আর বাড়াবাড়ির কোনো প্রয়োজন মনে করছি না।