আগের দুই ম্যাচে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ৩০০ এর বেশি রান করেও জয় পায়নি ভারত। আজ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয়টিতে মুখোমুখি হয় টিম ইন্ডিয়া। প্রথম ও দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টানা সেঞ্চুরি হাঁকান ভারতের তারকা ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা। দুবারই তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন বিরাট কোহলি। তৃতীয় ম্যাচে শতকের দেখা পাননি রোহিত। মাত্র ৬ রানেই রিচার্ডসনের শিকার হয়ে বিদায় নেন। তাতে কী? তৃতীয় ম্যাচে ভারতের সেঞ্চুরির অভাবটা পূরণ করেন কোহলি। মেলবোর্নে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে বিরাট কোহলির সেঞ্চুরিতে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৯৫ রান করে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল।
কিন্তু এই লক্ষ্যও বড্ড মামুলিই মনে হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানদের কাছে। ৭ উইকেট হারিয়ে অস্ট্রেলিয়া জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় সাত বল হাতে রেখেই। এই ম্যাচে ভারতকে ৩ উইকেটে উড়িয়ে দিয়ে ২ ম্যাচ হাতে রেখেই পাঁচ ম্যাচের সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে নিশ্চিত করে অস্ট্রেলিয়া। তাই রোহিতের পর কোহলির সেঞ্চুরিও গেল বিফলে।
জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া খেলেছে চ্যাম্পিয়নের মতোই। উদ্বোধনী জুটিতে স্বাগতিকদের শুভ সূচনা এনে দেন শন মার্শ ও অ্যারন ফিন্স। দলীয় ৪৮ রানের মাথায় ফিন্স (২১) বিদায় নিয়েও শন মার্শ তুলে নেন ফিফটি। ইশান্ত শর্মার বলে ক্যাচ তুলে দেয়ার আগে ৬২ রান করেন মার্শ।
এদিনও ভারতীয় বোলারদের কাটা হয়ে ওঠতে শুরু করেন স্টিভেন স্মিথ। অসি অধিনায়ককে (৪১) থামিয়ে সফরকারী শিবিরে সাময়িক স্বস্তি এনে দেন রবীন্দ্র জাদেজা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ভারতের এই স্বস্তি টিকতে দেননি ৪ রানের জন্য সেঞ্চুরিবঞ্চিত গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ৮৩ বলে আটটি চার ও তিনটি ছক্কায় ৯৬ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে অস্ট্রেলিয়ার জয়ের কাছাকাছি নিয়ে যান তিনি। উমেশ যাদবের বলে শিখর ধাওয়ানের তালুবন্দি হয়ে সাজঘরে ফেরেন ম্যাক্সওয়েল। অসিদের জয়ের বন্দরে পৌঁছতে বাকি কাজটুকু সারেন জেমস ফকনার। ২১ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন তিনি।১০ ওভারে ৪৯ রানে ২ উইকেট নিয়ে ভারতের সেরা বোলার রবিন্দ্র জাদেজা। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন ইশান্ত শর্মা ও উমেশ যাদব।
এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১৫ রানে ওপেনার রোহিত শর্মার উইকেট হারায় ভারত। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে দলের স্কোরশিটে ১১৯ রান যোগ করে সফরকারীদের বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে নেন শিখর ধাওয়ান ও বিরাট কোহলি। ছন্দে ফেরা ধাওয়ান করেন ৬৮ রান। কোহলির ব্যাট থেকে আসে অনবদ্য ১১৭ রান। মজার বিষয় হচ্ছে, তিনি মোকাবিলা করেছেন সমানসংখ্যক বল (১১৭)। ভারতের টেস্ট অধিনায়কের ইনিংস ছিল ৭টি চার ও ২টি ছক্কায় সাজানো। তাকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান অসি পেসার জন হ্যাস্টিংস।
এদিন রানের দেখা পেয়েছেন ফর্মে থাকা আজিঙ্কা রাহানেও। ৫৫ বলে চারটি চার ও একটি ছয়ে ৫০ রান করে হ্যাস্টিংসের শিকারে পরিণত হন তিনি। ধোনিকে সাজঘরে ফেরান সেই হ্যাস্টিংসই। বিদায়ের আগে ৯ বলে ২৩ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন ভারতীয় অধিনায়ক।
অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে ৪ উইকেট নেন জন হ্যাস্টিংস। ১টি করে উইকেট ঝুলিতে জমা করেন কেন রিচার্ডসন ও জেমস ফকনার। ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান তারকা গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। আগামী ২০ জানুয়ারি ক্যানবেরায় অনুষ্ঠিত হবে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের চতুর্থ ওয়ানডে।