Real+Madrid's+Karimরিয়াল মাদ্রিদকে লা লিগার শিরোপা লড়াইয়ে রাখলেন লুকা মড্রিচ। ক্রোয়েশিয়ার এই মিডফিল্ডারের শেষ মুহূর্তের গোলেই পয়েন্ট তালিকার নিচের দিকে থাকা গ্রানাদাকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছে জিনেদিন জিদানের দল। বছরের শুরুতে সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে কোচ হিসেবে যোগ দেওয়া জিনেদিন জিদানের অধীনে রিয়ালের এটা প্রথম ‘অ্যাওয়ে ম্যাচে’ জয়।
গত ২৯ নভেম্বর এইবারের মাঠে ২-০ গোলে জেতার পর প্রতিপক্ষের মাঠে এই প্রথম জিতল রিয়াল। মাঝে অন্যের মাঠে তিন ম্যাচ খেলে দুটিতে ড্র ও একটিতে হারে তারা।
গ্রানাদার মাঠে চতুর্দশ মিনিটে প্রথম সুযোগ পায় রিয়াল, কিন্তু বাঁদিক দিয়ে ডি বক্সে ঢুকে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর কোনাকুনি শট একটুর জন্যে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ১০ মিনিট বাদে গ্রানাদার জমাট রক্ষণে অতিথিদের আরেকটি আক্রমণ ব্যর্থ হয়ে যায়।
প্রথম ৩০ মিনিটে ভালো কোনো সুযোগ না পেলেও মাঝে মধ্যেই পাল্টা আক্রমণে রিয়ালের রক্ষণকে পরীক্ষায় ফেলছিল স্বাগতিকরা।
তারকাসমৃদ্ধ রিয়ালের আক্রমণভাগকে বেশিক্ষণ অবশ্য আটকে রাখতে পারেনি গ্রানাদা। ৩০তম মিনিটে দানি কারবাহালের আড়াআড়ি পাস পেয়ে আট গজ দূর থেকে সহজেই গোলরক্ষকে পরাস্ত করেন করিম বেনজেমা।
দারুণ ফর্মে থাকা এই ফরাসি স্ট্রাইকারের এটি এবারের লা লিগায় ১৯তম গোল। সমান সংখ্যক গোল সতীর্থ রোনালদোরও। একটি গোল বেশি করে গোলদাতাদের তালিকায় শীর্ষে আছেন বার্সেলোনার লুইস সুয়ারেস।
৪৩তম মিনিটে সমতাসূচক গোল পেয়ে যেতে পারতো গ্রানাদা। পর্তুগিজ ডিফেন্ডার মিগুয়েল লোপেজ রিয়ালের রক্ষণ ভেঙে ডি বক্সে ঢুকে গোলমুখে ফাঁকায় বল বাড়িয়েছিলেন, কিন্তু প্রয়োজনীয় টোকা দেওয়ার মতো কেউ ছিল না।
দ্বিতীয়ার্ধের দ্বিতীয় মিনিটে এ পর্যন্ত ম্যাচের সহজতম সুযোগটি পায় গ্রানাদা, কিন্তু স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড দাভিদ বারালের হেড ডানদিকে ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক কেইলর নাভাস।
পরের মিনিটেই লুকা মদ্রিচের বিদ্যুৎ গতির শট বাঁদিকে লাফিয়ে রুখে দেন স্বাগতিক গোলরক্ষক। ৫৬তম মিনিটে ম্যাচের সহজতম সুযোগটি হারায় রিয়াল; এবার ১০ গজ দূর থেকে করিম বেনজেমার শট পা দিয়ে ঠেকান গোলরক্ষক আন্দ্রেস ফের্নান্দেস।
এর চার মিনিট বাদেই রিয়াল শিবিরকে থমকে দিয়ে সমতায় ফেরে গ্রানাদা। ডান দিক থেকে ডি বক্সে ঢুকে এগিয়ে আসা গোলরক্ষক নাভাসকে কোনাকুনি শটে পরাস্ত করেন ফরাসি ফরোয়ার্ড ইয়োসেফ এল আরাবি।
ম্যাচে ফিরে আরও আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে পয়েন্ট তালিকার ১৯তম স্থানে থাকা গ্রানাদা, প্রতিপক্ষের আক্রমণ ঠেকিয়ে পাল্টা আক্রমণে উঠতে থাকে তারা। ৭৫ মিনিটের পরিসংখ্যান কিছুটা অবাক করারই বটে; রিয়ালের ১২টি আক্রমণের চেয়ে একটি বেশি আক্রমণ বেশি করে গ্রানাদা।
শেষ দিকে গোল পেতে মরিয়া হয়ে ওঠা রিয়াল ৮৫তম মিনিটে আবারও এগিয়ে যায়। বদলি নামা অস্ট্রিয়ার মিডফিল্ডার মাতেও কোভাসিচের ছোট পাস পেয়ে দুই পা এগিয়ে ডি বক্সের বাইরে থেকে আচমকা জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন ক্রোয়েশিয়ার মিডফিল্ডার মদ্রিচ।
এবারের লা লিগায় মদ্রিচের এটা প্রথম গোল। শেষ পর্যন্ত তার এই গোলেই জয়ের আনন্দে মাঠ ছাড়ে স্পেনের সফলতম ক্লাবটি।
এই জয়ে ২৩ ম্যাচে রিয়ালের পয়েন্ট হলো ৫০। এক পয়েন্ট বেশি নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে আতলেতিকো মাদ্রিদ।
শীর্ষে থাকা বার্সেলোনার পয়েন্ট ৫৪। একটি ম্যাচ কমও খেলেছে মেসি-নেইমাররা।