faridee_humayunমৃত্যুর বছর দেড়েক আগে উত্তম আকাশের পরিচালনায় ‘এক জবানের জমিদার, হেরে গেলেন এবার’ শিরোনামের একটি চলচ্চিত্রের নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন অভিনেতা হুমায়ুন ফরীদি। ডাবিংসহ অন্যান্য কাজ শেষ হলেও, ২০১১ সালে প্রযোজক নাজিম উদ্দিন চেয়ারম্যানের মৃত্যুর কারণে ছবিটির মুক্তি অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। তবে আশার কথা হলো,  হুমায়ুন ফরীদির মৃত্যুর পাঁচ বছর পর সব আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে চলতি সপ্তাহেই সেন্সরে যাচ্ছে ‘এক জবানের জমিদার, হেরে গেলেন এবার’।
২০০৯ সালের শেষ দিকে মহরতের মাধ্যমে শুরু হয়েছিলো ‘এক জবানের জমিদার, হেরে গেলেন এবার’ ছবির নির্মাণ কাজ। মূলত হুমায়ুন ফরীদিকে কেন্দ্র করেই ছবির গল্প লেখা হয়েছিল। এতে তিনি একজন জমিদারের চরিত্রে অভিনয় করেন। ২০১০ সালে  ছবির শুটিং শেষ হলেও, মুক্তির আনুষ্ঠানিকতা শুরুর আগেই প্রযোজক নাজিম উদ্দিন চেয়ারম্যান মারা যান। অন্যদিকে ছবির ডাবিং শেষ করার পর ২০১২ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি মারা যান অভিনেতা হুমায়ুন ফরীদিও। ফলে মুক্তি নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েন নির্মাতা।
এদিকে গেল বছরের শেষ দিকে  প্রযোজকের পরিবারের উদ্যোগে ছবিটির মুক্তি নিয়ে তোড়জোড় শুরু হয়। শেষ পর্যন্ত আলোর দেখা মিলেছে। সব কাজ শেষ, চলতি সপ্তাহেই সেন্সরে যাচ্ছে ‘এক জবানের জমিদার, হেরে গেলেন এবার’। এ প্রসঙ্গে পরিচালক উত্তম আকাশ বলেন, ‘প্রযোজকের মৃত্যুর কারণে এতদিন মুক্তি দিতে পারিনি। অবশেষে আমরা সব কিছু ঠিকঠাক করে ফেলেছি। সেন্সর ছাড়পত্র ফেলেই মুক্তির প্রক্রিয়া শুরু করব।’
তিনি আরো বলেন, ‘ছবিটি মুক্তির বিষয়ে কয়েকটি টেলিভিশন চ্যনেলের সঙ্গে কথা হয়েছে। কারণ টিভিতেই ছবিটির প্রিমিয়ার করতে চান প্রযোজকের পরিবার।’
ছবির কাহিনীতে দেখা যাবে, হুমায়ুন ফরীদি এক-জবানের জমিদার। কথা যা বলেন, তা-ই করেন। কথা রাখতে গিয়েই তিনি নিঃস্ব হয়েছেন তবু নিজের কথা থেকে সরে আসেননি। জমিদারের কথার কারণেই এক যুবক হয়েছেন জমিদার। আর জমিদার পরিণত হয়েছেন পথের ভিখারিতে। মূলত নাতনি সিলভির জন্য এক যুবককে তিনি কথা দেন। সেই কথার জন্যই ফরীদিকে ত্যাগ করতে হয় সবকিছু। এক-জবানের জমিদার হেরে যান নীতির কারণে।
উল্লেখ্য, ৩৫ মিলি মিটারে নির্মিত ছবিটি সম্প্রতি ডিজিটালে কনভার্ট করা হয়েছে। সেন্সর ছাড়পত্র পেলেই মুক্তির তারিখ ঘোষণা করা হবে।