bottle waterআমরা জানি যে, খাদ্য সামগ্রী ও কোমল পানীয় বাজারজাত করার প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য প্যাকেটের ওপরে খাদ্যের পুষ্টিমান, উপাদানের তালিকা, মেয়াদোত্তীর্ণ তারিখ ব্যবহার করাটা বাধ্যতামূলক। কিন্তু আপনার মনে নিশ্চয় এ প্রশ্ন উঠে যে, কেন বোতলজাত বিশুদ্ধ পানিতে অর্থাৎ মিনারেল ওয়াটারে মেয়াদোত্তীর্ণ তারিখ দেয়া থাকে? পানি তো কখনো মেয়াদোত্তীর্ণ হয় না। তাহলে বোতলজাত পানিতে কেন মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ লেখা থাকে? পানিতে মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ ব্যবহার করার মানেটা আসলে কী? পানি কী সত্যিই মেয়াদোত্তীর্ণ হয়?
এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞানীদের বক্তব্য, বোতলজাত পানি মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে যায় না। কিন্তু বোতলজাত পানির গুণগতমানে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে প্যাকেজিং এবং অন্যান্য পরিবেশগত কারণ। যে প্লাস্টিকের বোতলে পানি থাকে, সেই প্লাস্টিকটি একটা নির্দিষ্ট সময়ের পরে রাসায়নিক ছড়াতে শুরু করে এবং পানির স্বাদ নষ্ট করে দেয়। শুধু তাই নয়, সরাসরি সূর্যের আলোতে প্লাস্টিকের বোতলজাত পানি রাখলে, প্লাস্টিক উত্তপ্ত হওয়ায় রাসায়নিক উপাদান পানিতে ছড়িয়ে পড়ে।
প্লাস্টিকের কিছু উপাদান যেমন- বিসপিনোল-এ অথবা বিপিএ, এটি মানুষের হরমোনে প্রভাব ফেলে এবং স্তন ক্যান্সার, মস্তিষ্কের আবরণের ক্ষতি, হৃদরোগ ও পুরুষের বন্ধ্যাত্ব ঝুঁকি সৃষ্টি করতে পারে।
তাই সরাসরি সূর্যের আলোতে অথবা উত্তপ্ত স্থানে বোতলজাত পানি রাখা উচিত নয়। পাশাপাশি মিনারেল ওয়াটারের বোতল কখনোই দীর্ঘ সময় ধরে ব্যবহার করা উচিত নয়, কেননা প্লাস্টিকের বোতলটি মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে গেলে, তা প্লাস্টিকের রাসায়নিক উপাদান ছড়াবে।
মনে রাখা প্রয়োজন- প্লাস্টিক, যা দিয়ে মিনারেল ওয়াটারের বোতল তৈরি করা হয়, তা পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর। এই কারণে পানি দীর্ঘ সময় ধরে প্লাস্টিকের বোতলে সংরক্ষণ করা হলে, তাতে বাইরের গন্ধ, স্বাদ ও ব্যাকটেরিয়াও সংক্রমন করতে পারে। তাই মিনারেল ওয়াটারের বোতল কোনো বিষাক্ত ও গন্ধযুক্ত উপকরণ থেকে দূরে রাখবেন এবং শীতল ও অন্ধকার জায়গায় সংরক্ষণ করতে ভুলবেন না।
আরো যা মনে রাখা প্রয়োজন: পানির বোতল খালি হওয়ার ১৫ থেকে ২০ দিন পরে, সেটি আর ব্যবহার না করাই ভালো। বোতলে যেন ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে না পারে, সেজন্য বোতলটি পরিস্কার রাখুন। এবং যে পানির বোতলটি আপনি দোকান থেকে কিনছেন, সেটি আগে ব্যবহৃত হয়েছে কিনা, সেটি খেয়াল করুন।
এতক্ষণে নিশ্চয়ই প্রশ্নের উত্তর পেয়ে গেছেন যে, পানি মেয়াদোত্তীর্ণ হয় না। যে প্লাস্টিকের মধ্যে এটি থাকে, সেই প্লাস্টিক নির্দিষ্ট সময়ের পরে ক্ষতির কারণ সৃষ্টি করে।