jouno nipirokএক জরিপে দেখা গেছে, যুক্তরাজ্যের বেশিরভাগ নারী পাবলিক প্লেসে যৌন হয়রানির শিকার হন। খবর স্কাই নিউজের। ১৮ থেকে ২৪ বছর বয়সী নারীদের শতকরা ৮৫ শতাংশই যৌন হয়রানির শিকার এবং ৪৫ শতাংশের স্পর্শকাতর অংশে হাত দেওয়া হয়। শতকরা ৬৪ শতাংশ সকল বয়সের নারীই নির্যাতনের শিকার হন। হয়রানির শিকার হওয়া এক-তৃতীয়াংশেরই বয়স ১৬ বছরের নিচে।
প্রতিবাদের বেলায়, শুধুমাত্র ১১ শতাংশ ব্যক্তিই হয়রানির সময় নারীদের পক্ষ নিয়ে কথা বলেন। যদিও অধিকাংশ সময় নারীরা সাহায্যের জন্য আবেদন করে থাকেন।
বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধবিজ্ঞানী ড. চার্লট বার্লো বলেন, এই ধরনের ঘটনার ভুক্তভোগী হওয়ার কথা ছিল পরিণত বয়সী নারীদের কিন্তু তরুণীরাই শিকার হচ্ছেন।
তিনি বলেন, ‘আমাদের সমাজে এ ধরনের হয়রানি করাকে প্রশংসনীয় হিসেবে শেখানো হয়। যারা এসব পছন্দ না করে তাদের বলা হয় নারীবিদ্বেষী অথবা এমন ব্যক্তি হিসেবে চিহ্নিত করা হয়, যারা ঠাট্টা পছন্দ করতে জানে না।’
চার্লটে স্টিভেনস নামে ২১ বছর বয়সী এক তরুণী স্কাই নিউজকে জানান, নাইট ক্লাবে যাওয়ার সময় নিয়মিতই তাকে যৌন হয়রানির শিকার হতে হয়। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে তার বাড়ির রাস্তাটিও পরিবর্তন করতে বাধ্য হন তিনি।
যুক্তরাজ্যের নারীবাদী একটি প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক সারা গ্রিন বলেন, প্রতিদিনের যৌন হয়রানি মোকাবেলা করা শিখতে হবে নারীদের। এটাকে একটা চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিতে হবে।