Bolly_Top1457693889ভালোবাসার মানুষ না পাবার ব্যথা অন্যরকম। এটা সহজে ভুলবার নয়। পর্যাপ্ত সম্পদ কিংবা সম্মান থাকলেই যে আপনার প্রেমের গল্পের সঙ্গে সফলতা যুক্ত হবে তেমনটি নয়। যুগে যুগে বিফল মানুষের গল্পের বিস্তৃতিও বাড়ছে। এর থেকে দূরে নয় অভিনয়শিল্পীরা।
একসঙ্গে অভিনয় করতে করতে নিজেদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠা নতুন কিছু নয়। সেইসব প্রেমে সফলতা এবং ব্যর্থতা দুই লক্ষ্য করা গিয়েছে। আজকের প্রতিবেদন সাজানো হয়েছে তেমন কিছু বলিউড অভিনেতা এবং অভিনেত্রীদের নিয়ে, যারা সিরিয়াস প্রেম করেও খুঁজে পাননি সফলতা।
রাজ কাপুর-নার্গিস : জনপ্রিয় সিনেমা আওয়ারা তে তাদের জুটি দর্শকদের মনে একটি আলাদা ধরনের ছাপ রাখতে সক্ষম হয়। এই জুটিকে একসঙ্গে দেখা যায় ১৬ টি সিনেমায়। এই মধ্যেই প্রেমে মজেছিলেন বলিউড ইতিহাসের অন্যতম জনপ্রিয় এই জুটি। ভক্তদের আশা ছিল সারাটি জীবন একসঙ্গে কাটাবেন দুজন। কিন্তু আর সেটা হয়ে উঠেনি। পারিবারিক ঝামেলার কারনে দুজনের প্রেমে ছেদ পড়ে। পরে রাজ কাপুর অভিনেতা প্রেমনাথের বোন কৃষ্ণা রাজ কাপুরকে বিয়ে করলেও এই জুটির অনবদ্য প্রেম কাহিনি এখনো দর্শকদের মুখে মুখে শোনা যায়।
দিলীপ কুমার-মধুবালা : বলিউডের অন্যতম নামকরা জুটি দিলীপ কুমার এবং মধুবালা। শুধু পর্দায়ই নয়, ব্যক্তিজীবনেও দুজন দুজনের ছিলেন অতি আপন। তাদের প্রেমের সম্পর্ক এবং জুটি দুই মিলিয়ে সে সময়ে আলোচনায় থাকতেন এই দুইজন। ঐ সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মধুবালার এঙ্গেজমেন্ট হলেও পারিবারিক সমস্যার কারণে শেষে অবশ্য বিয়ে হয়নি এ দুজনের। কারণ দিলীপ কুমার ছিলেন মুসলমান। সিনেমাতে এসে দিলীপ নাম ধারণ করলেও তার প্রকৃত নাম মুহাম্মাদ ইউসুফ খান। তবে বলিউডের বিখ্যাত এই ট্র্যাজিক হিরো তার প্রেমিকাকে না পেলেও তারা দুজন বলিউড ইতিহাসে উজ্জ্বল হয়ে থাকবেন চিরকাল।
সঞ্জয় দত্ত-মাধুরী দীক্ষিত : নব্বই দশকের দিকে  ক্যান্সারের কারণে সঞ্জয় দত্তের স্ত্রী রিচা শর্মা মারা গেলে একা হয়ে পড়েন সঞ্জয়। ঠিক সেই সময়ে মাধুরীর সঙ্গে ভালো বন্ধুত্ব হয় তার। বন্ধুত্ব থেকে সম্পর্কটি খুব অল্পসময়েই প্রেমের দিকে গড়ায়। এটা নিয়ে বলিউডপাড়া এবং মিডিয়ায় আলোচনার তুমুলে উঠলে ছেদ ঘটে এই সম্পর্কের। একসঙ্গে অধিক সিনেমায় কাজ না করলেও সঞ্জয়-মাধুরীর প্রেম কাহিনি এখনো পর্যন্ত একটি আলোচিত বিষয়।
অক্ষয় কুমার-শিল্পা শেঠি : একসঙ্গে একাধিক সিনেমায় কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে অক্ষয় কুমার এবং শিল্পা শেঠির। সেখান থেকেই সম্পর্ক গড়ে উঠে এ দুজনার। তবে সম্পর্ক বেশিদিন টিকলেও দুজন দুজনকে বিবাহ করতে পারেননি। নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির মাধ্যমে সম্পর্কটির ছেদ ঘটেছে বলে মনে করেন অনেকে। তবে অক্ষয়-শিল্পার প্রেম কাহিনি বলিউড পাড়ায় একসময় আলোচিত বিষয় ছিল।
অভিষেক বচ্চন-কারিশমা কাপুর : প্রেমের সম্পর্কে  বলিউডের অন্যতম মর্মান্তিক ছেদ হলো অভিষেক কারিশমার। দুজনের প্রেম নিয়ে যখন আলোচনা তুঙ্গে সে সময় ঐশ্বরিয়াকে বিয়ে করতে বাধ্য হন অভিষেক। অবশ্য প্রেমের সম্পর্কে ছেদ ঘটলেও তাদের বন্ধুত্ব এখনো টিকে আছে।
শহিদ কাপুর-কারিনা কাপুর : শহিদ কাপুর এবং কারিনা কাপুরের প্রেমের গল্প কে না জানে। এক সময় চুটিয়ে প্রেম করেছেন তারা। তবে নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি এবং পরবর্তীতে সাইফ আলী খানের সঙ্গে কারিনার প্রেম সব মিলিয়ে ছেদ ঘটে এই সম্পর্কের। তবে বিচ্ছেদ হলেও তাদের প্রেমকাহিনি এখনো ভক্তদের মনে রয়েছে।
বিপাশা বসু-জন আব্রাহাম : ভক্তদের ধারণা ছিল  জন আব্রাহাম এবং বিপাশা বসু হয়তো বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হবেন। তাদের প্রেমের গল্প বলিউডের অন্যতম আলোচিত বিষয় হয়েছিল একসময়। তবে বিভিন্ন সিনেমায় একসঙ্গে কাজ করে দীর্ঘদিন ধরে গড়ে ওঠা এই সম্পর্ক পায়নি তার পূর্ণতা। জন আব্রাহাম বিয়ে করেন প্রিয়া রাঞ্চালকে এবং বিপাশা এখন প্রেম করছেন করণ সিং গ্রোভারের সঙ্গে।