India World T20 Cricket Bangladesh Oman

৮.২ ওভার শেষে ওমান ৪ উইকেট হারিয়ে তুলেছে ৪৫ রান। এরপর দ্বিতীয়বারের মতো বৃষ্টি নামলে খেলা বন্ধ হয়েওমানের সাথে বৃষ্টি আইনে ৫৪ রানে জিতে সুপার টেনে জায়গা করে নিল বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম পর্বের শেষ ম্যাচে ওমানের বিপক্ষে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ। আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে তামিমের সেঞ্চুরিতে ভর করে ১৮০ রানের পাহাড়সম ইনিংস গড়ে বাংলাদেশ।
১৮১ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৭ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ৪১ রান করার পরই ধর্মশালায় বৃষ্টি এসে হানা দেয়। বৃষ্টি শেষে আবার খেলা শুরু হয়। বৃষ্টি আইনে ১৬ ওভারে ওমানের জন্য নতুন টার্গেট দাঁড়িয় ১৫২ রান।
৮.২ ওভার শেষে ওমান ৪ উইকেট হারিয়ে তোলে ৪৫ রান। এরপর দ্বিতীয়বারের মতো বৃষ্টি নামলে খেলা বন্ধ হয়ে যায়।
বৃষ্টি আইনে ১২ ওভারে ওমানের জন্য নতুন টার্গেট দাঁড়ায় ১২০ রান।
ওমান ১২ ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ৬৫ রান তুলতে সক্ষম হয়।
ওমান শিবিরে বল হাতে প্রথমেই আঘাত করেন তাসকিন আহমেদ। ফিরিয়ে দেন জিসান মাকসুদকে (০)। এরপর দলীয় ১৪ রানের মাথায় আল-আমিন আঘাত হানেন। তিনি ফিরিয়ে দেন খাওয়ার আলীকে (৮)। বৃষ্টির পর খেলা শুরু হলে রান আউটে কাটা পড়েন আদনান ইলিয়াস। দলীয় ৪৪ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ১৩ রানে আউট হন ইলিয়াস। এরপর দলীয় ৪৫ রানে সাকিবের বলে মুশফিকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরত যান সহ-অধিনায়ক আমির কলিম (০) ।
এর আগে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের সবশেষ ম্যাচে ধর্মশালার মাঠে নামে বাংলাদেশ ও ওমান। দুই দলের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচটিতে টস জিতে আগে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ওমান দলপতি সুলতান আহমেদ। বাংলাদেশের হয়ে ব্যাটিংয়ের উদ্বোধন করতে নামেন তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। ইনিংসের সপ্তম ওভারে বিদায় নেন সৌম্য সরকার। লালচেতার বলে বোল্ড হওয়ার আগে তিনি করেন ২২ বলে দুটি চারে ১২ রান।
দলীয় ৪২ রানের মাথায় টাইগারদের ওপেনার সৌম্য সরকার বিদায় নিলেও উইকেটে জুটি গড়েন তামিম ইকবাল ও সাব্বির রহমান। ৫৫ বলে ৯৭ রানের জুটি গড়ে বিদায় নেন সাব্বির। ইনিংসের ১৬তম ওভারে বিদায় নেন সাব্বির। এশিয়ার সেরা এই ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে আসে ৪৪ রান। মাত্র ২৬ বলে ডানহাতি এই টাইগার ব্যাটসম্যান ৫টি চার আর একটি ছক্কা হাঁকান। সাব্বিরের বিদায়ের পর তামিমের সঙ্গে জুটি বাধেন সাকিব আল হাসান। এ জুটি থেকে আসে আরও ৪১ রান (২৪ বলে)। সাকিব ৯ বলে দুই চার আর একটি ছক্কায় ১৭ রান করে অপরাজিত থাকেন।
বাংলাদেশের দলীয় শতক আসে ৭৬ বলে। ১০৫ বলে টাইগাররা ১৫০ রান করে।
যায়।