Inner_1_466447496গতকাল রবিবার মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে একটি রেকর্ড গড়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রথম দল হিসেবে টি২০ বিশ্বকাপের কোনো একক আসরে পর পর দুই ম্যাচে দুই শ (বা এর বেশি) রান করার রেকর্ড গড়েছে তারা। শক্তির বিচারে অনেক পিছিয়ে থাকা আফগানিস্তানের বিপক্ষে এদিন ২০৯ রানের বিশাল সংগ্রহ গড়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে কম যায়নি আফগানরা। ম্যাচটি তারা হেরেছে বটে; তবে বীরোর মতো লড়াই করেই হেরেছে আফগানিস্তান।
২০৯ রানের বিশাল সংগ্রহ। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার হাফ ছেড়ে বাঁচার উপায় ছিল না! ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২২৯ রান করেও যে হারতে হয়েছিল। ইংলিশদের ইনিংসের পুনরাবৃত্তিই যেন করতে যাচ্ছিল আফগানিস্তান। প্রথম দশ ওভারে দুই উইকেটে ১০৩ রান তুলে প্রোটিয়াদের রীতিমতো ‘কাপিয়ে’ দিয়েছে আফগানরা।
বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে ৩টায় শুরু হওয়া ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাটিং করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। ব্যাট হাতে পেশিশক্তির প্রদর্শন দেখিয়ে এদিন দলকে বিশাল সংগ্রহ এনে দেন তারা। ওপেনার ডি কক ৩১ বলে করেছেন ৪৫ রান, অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস ২৭ বলে করেছেন ৪১ আর মিডল অর্ডারে এবি ডি ভিলিয়ার্স মাত্র ২৯ বলে করেছেন ৬৪ রান। নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ২০৯ রান তুলেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। এর আগের ম্যাচেই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২২৯ রান করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকানরা। ফলে টি২০ বিশ্বকাপের একক কোনো আসরে পর পর দুই ম্যাচে ২০০ বা এর বেশি রান করার রেকর্ডটিতে লেখা হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার নাম।
জবাব দিতে নেমে আফগানরাও ব্যাটিংয়ের দারুণ প্রদর্শনী দেখিয়েছে। উদ্বোধনী জুটি ভাঙার আগে প্রথম ৪ ওভারেই ৫২ রান তোলে তারা। সম্মিলিত প্রচেষ্টাতেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে লড়েছে আফগানিস্তান। তাদের সেই চেষ্টায় এক সময় চ্যালেঞ্জের মুখেও পড়তে হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকাকে। তবে দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার ক্রিস মরিস ৪ ওভার বোলিং করে ২৭ রানে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচটা নিজেদের পক্ষে টেনে নিয়েছেন। আর তাকে যোগ্য সহয়াতা দিয়েছেন ২ উইকেট করে নেওয়া কাগিসো রাবাদা, কাইল অ্যাবোট ও ইমরান তাহির। শেষ অব্দি ইনিংসের শেষ বলে অলআউট হওয়ার আগে আফগানিস্তান তুলেছে ১৭২ রান। বাছাই পর্বের বাধা ডিঙিয়ে আসা আফগানিস্তানের জন্য যা প্রশংসনীয় পারফরম্যান্সই।
আফগানিস্তানের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৪ রান (১৯ বলে) করেছেন মোহাম্মদ শাহজাদ।
এবারের আসরে মূল পর্বে (সুপার টেন) দুই দলের জন্যই এটি ছিল দ্বিতীয় ম্যাচ। নিজ নিজ প্রথম ম্যাচে দু’দলই পেয়েছে হারের স্বাদ। নিজেদের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকা পরাজিত হয়েছে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। আর আফগানিস্তান পরাজিত হয়েছিল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে।