facebook twiterসরকারি প্রতিষ্ঠান ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে সুনির্দিষ্ট নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। রোববার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জারি করা এই নির্দেশিকায় সেরা পোস্ট, কমেন্ট বা পেজ খোলার জন্য পুরস্কার দেয়ার কথাও বলা হয়েছে। নাগরিক সমস্যা উপস্থাপনকারীর সঙ্গে এর সমাধানকারীকেও পুরস্কার দেয়া হবে বলে নির্দেশিকায় উল্লেখ করা হয়েছে।
নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের ৮০ শতাংশ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে। আর আট শতাধিক সরকারি অফিসে দাপ্তরিক কাজে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার হচ্ছে। সরকারি প্রতিষ্ঠানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কার্যকর ব্যবহার নিশ্চিত, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে সরকারি প্রতিষ্ঠান ও কর্মচারীদের করণীয় ও বর্জনীয় নির্ধারণ এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে নিরাপত্তা ও গোপনীয়তা নিশ্চিত করতে নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।
নির্দেশনা অনুযায়ী, দাপ্তরিক যোগাযোগ ও মতবিনিময়, সমস্যা পর্যালোচনা ও সমাধান, জনসচেতনতা ও প্রচারণা, নাগরিকসেবা সহজ করা ও উদ্ভাবন, সিদ্ধান্তগ্রহণ ও নীতি নির্ধারণী প্রক্রিয়ায় জনগণের অংশগ্রহণ, জনবান্ধব প্রশাসন ব্যবহার নিশ্চিত করা এবং সেবাগ্রহীতার অভিযোগ নিষ্পত্তিতে সরকারি অফিসগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করতে পারবে।
শুধু তা-ই নয়, ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট পরিচালনায়ও দায়িত্বশীল আচরণ ও অনুশাসন মেনে চলার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
এছাড়া কনটেন্ট ও বন্ধু নির্বাচনে সতর্কতা অবলম্বন এবং অপ্রয়োজনীয় ট্যাগিং না করতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

বিস্তারিত দেখুন এই লিংকে: সোস্যাল মিডিয়া নির্দেশিকা