আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল-পর্তুগালের জয়


argentina portugal and brazil football logoবিশ্বকাপ বাছাইপর্বে আর্জেন্টিনা-পর্তুগালের জয়-ব্রাজিলরে ড্র-

মেসি-হিগুয়াইনের নৈপুণ্যে আর্জেন্টিনার জয়
আর্জেন্টিনার করদোবায় বাংলাদেশ সময় বুধবার সকালে গাব্রিয়েল মেরকাদো আর্জেন্টিনাকে এগিয়ে নেওয়ার পর পেনাল্টি থেকে ব্যবধান বাড়ান বার্সেলোনার তারকা ফরোয়ার্ড মেসি। ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে যেতে পারত আর্জেন্টিনা। কিকঅফের পরপরই আক্রমণ থেকে আনহেল দি মারিয়ার শট ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক কার্লোস লাম্পে; এভার বানেগার ফিরতি শট লাগে বারে।
ম্যাচের ২০তম মিনিটে তরুণ মেরকাদোর গোলে এগিয়ে যায় দুই বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। মেসি মাঝমাঠ থেকে ফ্রি-কিক পেয়ে সঙ্গে সঙ্গেই বল বাড়ান হিগুয়াইনকে। নাপোলির এই ফরোয়ার্ড এগিয়ে আসা গোলরক্ষকের উপর দিয়ে বল জালের দিকে পাঠালেও এক ডিফেন্ডার শুয়ে পড়ে তা ফিরিয়ে দেন। আবার বল পেয়ে হিগুয়াইন বল বাড়ান ফাঁকায় দাড়িয়ে থাকা মেরকাদোকে। অরক্ষিত জালে গোল করতে কোনো সমস্যাই হয়নি আগের ম্যাচে চিলির বিপক্ষে জয়সূচক গোল করা রিভার প্লেটের এই ডিফেন্ডারের। ১০ মিনিট পরই পেনাল্টি থেকে ব্যবধান দ্বিগুন করেন মেসি। গোলরক্ষক লাম্পে ঠিক দিকেই ঝাঁপিয়েছিলেন, কিন্তু জোরালো শট রুখতে পারেননি। ডি-বক্সে বানেগাকে ফাউল করা হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি।
এই গোলে একটি মাইলফলকে পৌঁছলেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক, দেশের হয়ে তার গোল হলো ৫০টি। আর্জেন্টিনার হয়ে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড ছুঁতে আর ছয়টি গোল চাই মেসির। ৭৮ ম্যাচে ৫৬ গোল করে এই রেকর্ড এখন গাব্রিয়েল বাতিস্তুতার।
বিরতির পর মেসির জোরালো হেড লক্ষ্যে থাকেনি। ৬৪তম মিনিটে হিগুয়াইনের দারুণ ব্যাক ফ্লিক থেকে লুকাস বিগলিয়ার শটও লক্ষ্যে থাকেনি।
দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বাছাইপর্বে এ নিয়ে টানা পাঁচটি ম্যাচ অপরাজিত থাকা আর্জেন্টিনা ষষ্ঠ রাউন্ড শেষে ১১ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে উঠে এল।

রোনালদো-নানির গোলে পর্তুগালের জয়
ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ সামনে রেখে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে জয়ে ফিরেছে পর্তুগাল। ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দল বেলজিয়ামকে ২-১ গোলে হারিয়েছে পর্তুগিজরা। আগের ম্যাচে বুলগেরিয়ার বিপক্ষে পেনাল্টি মিস করা পর্তুগিজ মহাতারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো বেলজিয়ামের বিপক্ষে গোল পেয়েছেন। অপর গোলটি করেছেন নানি। বেলজিয়ামের পক্ষে একটি গোল শোধ করেন রোমেলু লুকাকু।
মঙ্গলবার রাতের এই ম্যাচটি হওয়ার কথা ছিল বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসের কিং বাউডোইন স্টেডিয়ামে। কিন্তু গত সপ্তাহে ব্রাসেলসে সন্ত্রাসী হামলায় প্রায় ৩১ জন নিহত ও কয়েক শ লোক আহত হওয়ায় ম্যাচটি সরিয়ে আনা হয় লেইরিয়ায়।
এই ম্যাচে অনেকটা খর্বশক্তির দল নিয়ে মাঠে নেমেছিল বেলজিয়াম। চোটের কারণে ছিলেন না ভিনসেন্ট কোম্পানি, কেভিন ডি ব্রুইন, এডেন হ্যাজার্ড ও ক্রিস্টিয়ান বেনটেকের মতো খেলোয়াড়েরা। সুযোগটা ভালোমতোই কাজে লাগিয়েছে পর্তুগাল।

ম্যাচের ২০ মিনিটে পর্তুগালকে লিড এনে দেন নানি। ফেলিপে তাভারেস গোমেজের বাড়ানো বল বক্সের ভেতরে পেয়ে ডান পায়ের শটে বেলজিয়ামের গোলরক্ষককে ফাঁকি দেন ২৯ বছর বয়সি এই আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডার।বিরতির আগেই ব্যবধান দ্বিগুণ করে ফেলে পর্তুগাল। এবারের গোলদাতা দলের সেরা তারকা রোনালদো। আগের ম্যাচে বুলগেরিয়ার বিপক্ষে রোনালদো পেনাল্টি মিস করায় ম্যাচটি হেরে গিয়েছিল পর্তুগাল। তবে আগামী সপ্তাহে এল ক্লাসিকোর আগে গোলের দেখা পেলেন রিয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ড। কস্টা এডুয়ার্ডোর ক্রস থেকে হেডে গোলটি করেন সিআর-সেভেন।
বিরতির পর ম্যাচের ৬২ মিনিটে বেলজিয়ামের হয়ে ব্যবধান কমান লুকাকু। তবে ঘরের মাঠে পরাজয়ের হাত থেকে নিজেদের রক্ষা করতে পারেনি ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দলটি।

কোনোমতে রক্ষা ব্রাজিলের
গত জুনে কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনালে প্যারাগুয়ের কাছে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছিল ব্রাজিল। প্রায় নয় মাস পর বুধবার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে প্যারাগুয়েকে সামনে পেয়ে ‘প্রতিশোধের’ লক্ষ্যে মাঠে নেমেছিল সেলেসাওরা। কিন্তু প্রতিশোধ তো দূরে থাক, উল্টো আরেকটি পরাজয় চোখ রাঙানি দিচ্ছিল দুঙ্গার দলকে। তবে কোনোমতে পরাজয় এড়িয়েছে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।
২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে দক্ষিণ আমেরিকার অঞ্চলের ষষ্ঠ রাউন্ডের ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্র হয়েছে। দুই গোলে পিছিয়ে পড়ার পর শেষদিকে দুই গোল করে এক পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারে ব্রাজিল।
হলুদ কার্ডের খাঁড়ায় এ ম্যাচে ছিলেন না ব্রাজিল অধিনায়ক নেইমার। ছিলেন না ডিফেন্ডার ডেভিড লুইজও। শুরু থেকেই তাই প্যারাগুয়ের সামনে অসহায় দেখাচ্ছিল নেইমার-লুইজকে ছাড়া খেলতে নামা ব্রাজিলকে।
ঘরের মাঠে ম্যাচের ১৬ মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারতো প্যারাগুয়ে। তবে স্বাগতিকদের গোলবঞ্চিত করে পোস্ট। ওরতিজের ফ্লিক ব্রাজিল গোলরক্ষক আলিসনের হাতে লেগে পোস্টে লাগে। দুই মিনিট পর  দুর্দান্ত এক সেভ করে ব্রাজিলকে রক্ষা করেন আলিসন। গোমেজের শট দারুণভাবে ঠেকিয়ে দেন সেলেসাও গোলরক্ষক।
তবে ৪০ মিনিটে প্যারাগুয়েকে আর আটকে রাখতে পারেনি ব্রাজিল। সতীর্থ বেনিতেজ স্যান্টান্ডারের ক্রস থেকে গোল করেন দারিও লেজকানো। বিরতির পর ৪৯ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে ফেলে স্বাগতিকরা। এবারের গোলদাতা বেনিতেজ স্যান্টান্ডার নিজেই। ওরতিজের বাড়ানো বল থেকে গোলটি করেন তিনি।
দুই গোলে পিছিয়ে পড়ার তখন পরাজয়ই চোখ রাঙানি দিচ্ছিল ব্রাজিলকে। তবে ৭৯ মিনিটে একটি গোল শোধ করে সেলেসাওদের কিছুটা আশার আলো দেখান রিকার্ডো অলিভিয়েরা। প্রথমে হাল্কের শট ফিরিয়ে দিয়েছিলেন প্যারাগুয়ের গোলরক্ষক। তবে ফিরতি বল জালে জড়িয়ে দেন ৩৫ বছর বয়সি অলিভিয়েরা।
আর ম্যাচের শেষ বাঁশি বাজার খানিক আগে দানি আলভেসের গোলে নাটকীয় ড্র পায় ব্রাজিল। ডি বক্সের ভেতর থেকে ডিফেন্ডারদের ফাঁক দিয়ে কোণাকুণি শটে লক্ষ্যভেদ করেন বার্সেলোনার এই ডিফেন্ডার।
এই ড্রয়ের পর ছয় ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে তালিকায় ষষ্ঠ স্থানে আছে ব্রাজিল। সমান ম্যাচে প্যারাগুয়ের পয়েন্টও ৯, তবে গোল গড়ে পিছিয়ে থাকায় সপ্তম স্থানে আছে তারা।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s