kerala mondirদক্ষিণ ভারতের কেরালার মন্দিরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে পুণ্যার্থীসহ মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১২–তে পৌঁছেছে। আহত হয়েছে প্রায় ৪০০ মানুষ। এ ঘটনায় কেরালার পুলিশের মহাপরিচালক স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক বক্তব্যে জানান, পুত্তিঙ্গল মন্দিরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে।
এদিকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় মন্দির পরিচালনা কমিটির সদস্যসহ ৩০ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এছাড়া অগ্নিকাণ্ডে বিচার বিভাগীয় তদন্তের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। রাজ্যের মন্ত্রিসভা জরুরি বৈঠকে বসে আলোচনার পর এ সিদ্ধান্ত নেয়। বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটির তদন্তকারীদের আগামী ছয় মাসের মধ্যে এ বিষয়ে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।
গত শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে কেরালার কোল্লাম জেলার পরাভুর পুট্টিঙ্গল দেবীর মন্দিরে একটি উৎসব উপলক্ষে বাজি পোড়ানোর সময় কাছের একটি ঘরে রাখা বিপুল পরিমাণ আতশবাজিতে আগুন লেগে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
কেরালার বিধানসভা তাৎক্ষণিকভাবে মৃত ব্যক্তিদের পরিবারপ্রতি ১০ লাখ এবং আহত ব্যক্তিদের পাঁচ লাখ রুপি করে দেওয়ার ঘোষণা দেয়। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি শোক প্রকাশ করে মৃত ব্যক্তিদের জন্য দুই লাখ এবং আহত ব্যক্তিদের ৫০ হাজার রুপি করে দেওয়ার ঘোষণা দেন।
এর আগে রোববার (১০ এপ্রিল) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল কংগ্রেসের সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধীসহ কেন্দ্রীয় সরকার ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা।
অগ্নিকাণ্ডে হতাহতদের পরিবারকে অনুদানের ঘোষণা দেন মোদি। তার ঘোষণা অনুযায়ী, এ অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের প্রত্যেকের পরিবার পাবে ২ লাখ রুপি করে। আর আহতরা পাবেন ৫০ হাজার রুপি করে।
রোববার (১০ এপ্রিল) ভোরে রাজ্যের রাজধানী তিরুবন্তপুরম থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে উপকূলীয় শহর কোলামের পুত্তিঙ্গল মন্দিরে অগ্নিকাণ্ডটি হয়।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, উৎসব উপলক্ষে বাজি পোড়ানো দেখতে হাজার পনেরো মানুষ মন্দির এলাকায় জড়ো হয়েছিল। রাত একটু গভীর হলে শুরু হয়েছিল বাজি পোড়ানো। হঠাৎই তারা বিকট আওয়াজ শুনতে পায়। ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, বিকট বিস্ফোরণের পরপরই আগুন ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ ও অগ্নিনির্বাপক দপ্তরের কর্মীদের পাশাপাশি স্থানীয় মানুষ উদ্ধারকাজে যোগ দেয়। নৌ ও বিমানবাহিনী হেলিকপ্টার নিয়ে উদ্ধারে নামে। সকালে মন্দির চত্বরে আগুনে পুড়ে হতাহত মানুষের শরীরের বিভিন্ন অংশ ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকতে দেখা যায়।