long scartপুরুষ শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের আকর্ষণ রোধে কমপক্ষে হাটু পর্যন্ত লম্বা স্কার্ট পরার জন্য ছাত্রীদের আদেশ দিয়েছে নিউজিল্যান্ডের একটি উচ্চ বিদ্যালয়। বলা হয়েছে, ছাত্রীদের স্কার্টের সীমা অন্তত হাটু পর্যন্ত হতে হবে। ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানায়, নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ডে হেন্ডারসন হাইস্কুল কর্তৃপক্ষ তাদের ১১ বছর বয়সী ৪০ ছাত্রীকে নিয়ে একটি বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত জানায়। স্কুলের উপাধ্যক্ষ চেরিথ টেলফোর্ড বলেন, ছাত্রীদের স্কার্ট কমপক্ষে হাটু পর্যন্ত নামিয়ে আনা উচিৎ।
এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘আমাদের মেয়েদের নিরাপদ রাখতে, ছেলেদের বাজে চিন্তা থেকে মুক্ত রাখতে এবং পুরুষ কর্মচারি-কমকর্তাদের জন্য কাজের ভালো পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে আমরা এ পদক্ষেপ নিয়েছি।’
তবে এর প্রতিবাদ জানিয়েছে, কিছু শিক্ষার্থীর অভিভাবক এবং নারীবাদীরা। নিউজিল্যান্ডের ম্যাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং নারীবাদী দেবোরাহ রাসেল বলেন, ‘এ ধরনের সিদ্ধান্তে আমি খুবই বিরক্ত। এর দ্বারা বোঝায়, তরুণদের যৌন আচরণের জন্য তরুণীরাই দায়ী। এছাড়া এটা যুবকদের কাছে বার্তা দেয় যে তাদের যৌন আচরণ অনিয়ন্ত্রণযোগ্য।’
‘রেপ ক্রাইসিস’ নামের একটি নারীবাদী সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক ডেবি তোহিল মনে করেন, স্কুলের জন্য পোশাকের একটি নিয়ম থাকা দরকার। তবে স্কার্ট লম্বা করার নির্দেশনা বোঝায়, পুরুষের যৌনাচারের জন্য নারী এবং তরুণীরাই দায়ী।
ওই বৈঠক অংশগ্রহণকারী হেন্ডারসনের ছাত্রী সাদি টাটল জানান, তিনি ওই আদেশের প্রতি আপত্তি জানাননি। তবে এর পেছনে উদ্দেশ্যটি ঠিক নয়।
টাটল বলেন, ‘নিয়মটা তাদের জন্য কোনো সমস্যা না। সমস্যা হচ্ছে, পোশাকের মাধ্যমে যখন মেয়েদের টার্গেট করা হয়। বিশেষ করে যখন বলা হয়, তাদের দেহ অন্যদের যৌন অনুভূতি জাগিয়ে তোলে।’ তবে এখন পর্যন্ত হেন্ডারসন স্কুল কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে তাদের কোনো মন্তব্য জানায়নি।