Barca-atlatecoনিজেদের শেষ চার ম্যাচে মাত্র এক জয়ে স্বস্তি নেই বার্সেলোনা শিবিরে! তবে ওই একটি জয়ই এসেছে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে। সেই ম্যাচটি ছিল চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে উঠার প্রথম ধাপ। এবার অ্যাতলেতিকোর মাঠে ফিরতি পর্বের ম্যাচে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে নামবে বার্সা।
অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে পেলে বার্সেলোনার শরীরটা কি ছমছম করে? অ্যাটলেটিকোকে না হারালে কি ভালো লাগে না কাতালানদের? এমন অনেক প্রশ্ন। অতীত পরিসংখ্যানই এমন প্রশ্নের জন্য দায়ী! গত সাত ম্যাচের সবকটিতে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে পরাজিত করেছেন মেসি-নেইমার-সুয়ারেজরা। ‘এমএনএস’র মধ্যে যে কেউ জ্বলে ‍ওঠেন দিয়েগো সিমিওনের দলের বিপক্ষে। না হয়, একসঙ্গে জ্বলেন তিনজনই।
অ্যাটলেটিকোর ঘরের মাঠেও কিন্তু বার্সার কাছে পাত্তা পায় না তারা! গত দুই ম্যাচই তার বড় প্রমাণ। ওই দুই ম্যাচে কাতালানদের কাছে বিধ্বস্ত হয়েছেন গাবি-কোকেরা। সবশেষ বার্সার বিপক্ষে অ্যাটলেটিকো জয়ের মুখ দেখেছিল ২০১৩-১৪ মৌসুমে। সেবার চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে ১-০ ব্যবধানে হারিয়ে বার্সাকে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় করেছিল সিমিওনের দল।
প্রথম লেগ শেষে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে কাতালানরা। ঘরের মাঠে বার্সার বিপক্ষে ন্যূনতম ব্যবধানের (১-০) জয় পেলেও অ্যাওয়ে গোলের সুবাদে শেষ চারে পা রাখবে দিয়েগো সিমিওনের শিষ্যরা।
আজ বুধবার (১৩ এপ্রিল) ভিসেন্তে ক্যালদেরনে বার্সাকে স্বাগত জানাবে অ্যাটলেটিকো। চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় লেগের ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১২টা ৪৫ মিনিটে। সরাসরি সম্প্রচার করবে টেন ১ এইচডি ও টেন ২। অপর কোয়ার্টারে মুখোমুখি হবে বায়ার্ন মিউনিখ ও বেনফিকা। ম্যাচটি শুরু হবে একই সময়ে। সরাসরি সম্প্রচার করবে টেন ১।
একই সময়ে পর্তুগিজ চ্যাম্পিয়ন বেনফিকার মুখোমুখি হবে বায়ার্ন মিউনিখ। অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনায় অনুষ্ঠিত প্রথম লেগের ম্যাচটিতে ১-০ গোলের কষ্টার্জিত জয় পায় বাভারিয়ানরা।
বার্সার বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে দলের অন্যতম সেরা স্ট্রাইকার ফার্নান্দো তোরেসকে পাচ্ছে না অ্যাতলেতিকো। ন্যু ক্যাম্পে অনুষ্ঠিত প্রথম লেগে লাল কার্ড দেখে এক ম্যাচে নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়েন স্প্যানিশ তারকা।
ভিসেন্তে কালদেরনে সবশেষ গত বছরের সেপ্টেম্বরে লা লিগার ম্যাচ খেলেছিল বার্সা। সে ম্যাচটিতে লিওনেল মেসি ও নেইমারের গোলের সুবাদে ২-১ ব্যবধানে জয় পেয়েছিল কাতালানরা। এবার চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমি নির্ধারণী ম্যাচেও নিশ্চয় মেসি-নেইমারের দিকে তাকিয়ে থাকবেন বার্সা সমর্থকরা। সঙ্গে আরেক ‘গোলমেশিন’ লুইস সুয়ারেজ তো আছেনই।
অ্যাতলেতিকোর সঙ্গে মুখোমুখি লড়াইয়ে লুইস এনরিকের বার্সার রেকর্ডটা (৭-০) দুর্দান্ত বললেও ভুল হবে! তার অধীনে অ্যাতলেতিকোর বিপক্ষে সাত ম্যাচের সাতটিতেই জয়োল্লাসে মাতে গত আসরের ট্রেবল জয়ীরা।
সবশেষ তিনবারের সাক্ষাতে প্রথমে অ্যাতলেতিকো লিড নিলেও ম্যাচ শেষে তিনবারই ২-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সা। এবার সিমিওনের সামনে লিগ চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে জয় খরা কাটানোর চ্যালেঞ্জ। ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের শিরোপা ধরে রাখার মিশনে বার্সাকে যে কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি হতে হবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না!