ভুল চিকিৎসায় যুক্তরাষ্ট্রে বছরে আড়াই লাখ রোগীর মৃত্যু


therapy usa.jpgভুল চিকিৎসার কারণে যুক্তরাষ্ট্রে বছরে ২ লাখ ৫০ হাজার লোকের মৃত্যু হয়। দেশটিতে মানুষ মৃত্যুর এটি তৃতীয় বড় কারণ। মঙ্গলবার প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিনস বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব মেডিসিনের মার্টিন মাকারি ও মাইকেল ড্যানিয়েল গবেষণা প্রতিবেদনটি তৈরি করেছেন। মঙ্গলবার ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নালে এটি প্রকাশিত হয়েছে। প্রতিবেদনটি তৈরি করতে ১৯৯৯ সাল থেকে রোগী মৃত্যুর তথ্য ব্যবহার করা হয়েছে।
এতে বলা হয়, চিকিৎসাসংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ভুলের কারণে এক বছরে আড়াই লাখেরও বেশি রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এর বাইরে হৃদরোগে ৬ লাখ ১১ হাজার ও ক্যান্সারে ৫ লাখ ৮৫ হাজার জনের মৃত্যু হয়েছে।
প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে সরকারি প্রতিবেদনে চিকিৎসাসংশ্লিষ্ট ভুলের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হয় না। কারণ মৃত্যুর কারণ হিসেবে আন্তর্জাতিক রোগ শ্রেণিবিন্যাস (আইসিডি) কোডে ভুল চিকিৎসাকে শ্রেণিভুক্ত করা হয়নি। এই আইসিডি যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও যুক্তরাজ্যসহ ১১৭টি দেশে ব্যবহৃত হয় বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
গবেষকরা জানিয়েছেন, তারা ২০০০ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর হারের তথ্য নিয়ে গবেষণা করেছেন। ২০১৩ সালে মোট ৩ কোটি ৫৪ লাখ ১৬ হাজার ২০ জন রোগী হাসপাতালে এসেছিলেন। এদের মধ্যে ২ লাখ ৫১ হাজার ৪৫৪ জন ভুল চিকিৎসার কারণে মারা গেছেন। এই হার যুক্তরাষ্ট্রে এক বছরে মোট মৃত্যুহারের সাড়ে ৯ শতাংশ।
তবে গবেষকরা জানিয়েছেন, এসব ভুলে চিকিৎসার অধিকাংশ ক্ষেত্রে বাজে চিকিৎসকরা দায়ী নন। বাজে সেবা, ভঙ্গুর স্বাস্থ্যবিমা ব্যবস্থা অথবা পর্যাপ্ত প্রটোকলের অভাবের মতো ব্যবস্থাপনাগত ত্রুটিই এসব ক্ষেত্রে দায়ী।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s