Sakib_Mustafizরোববার রাতে আইপিএলে দাপুটে জয় পেয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। বিরাট কোহলির ৫৪ রানের ইনিংসে ভর করে বেঙ্গালুরু দিল্লির ১৩৮ রান টপকে যায় ৬ উইকেট হাতে রেখে। অষ্টম জয় তুলে, সর্বোচ্চ রান রেট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের দুইয়ে উঠে আসে বেঙ্গালুরু। বিরাট কোহলির দল দুইয়ে ওঠায় তিনে নেমে গেছে মুস্তাফিজুর রহমানদের সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। চারে অবস্থান করছে সাকিব আল হাসানদের কলকাতা নাইট রাইডার্স। আবারও আইপিএলে মুখোমুখি হচ্ছেন বাংলাদেশের এ দুই তারকা।
শুরুর দিকের চিত্র এতটা আশান্বিত ছিল না। অনেকটা খেই হারিয়ে ফেলেছিল মুস্তাফিজের হায়দরাবাদ। তবে টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের রানে ফেরায় স্বস্তি, সঙ্গে মুস্তাফিজ-নেহরা-ভুবনেশ্বরদের জ্বলে ওঠা। সব মিলিয়ে পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষস্থানেও ছিল হায়দরাবাদ বেশকিছুদিন। তবে শেষের দিকে আবারও ছন্দ পতন। কয়েকটি হারে অবস্থান এখন তৃতীয়। তারপরও মুস্তাফিজের দল খেলছে প্লে অফ, খুশি ভক্ত-সমর্থকরা।
সাকিব আল হাসানের ক্ষেত্রে কিছুটা উল্টো। শুরুর দিককার ম্যাচগুলোতে কলকাতা ছিল বেশ অপ্রতিরোধ্য। যেসব ম্যাচে সাকিব ছিলেন মাঠের বাইরে। তবে ধীরে ধীরে স্কোয়াডে নিজের জায়গা পাকাপোক্ত করেন তিনি। শেষের দিকে দুই ম্যাচ হাতে রেখেই প্লে অফ নিশ্চিত করার কথা ছিল সাকিবদের। কিন্তু হয়নি। বাঁচা-মরার শেষ ম্যাচে হায়দরাবাদকে হারিয়ে চতুর্থ স্থান নিশ্চিত করে কলকাতা নাইট রাইডার্স।
হায়দরাবাদ তৃতীয়, কলকাতা চতুর্থ। অনুমিতভাবেই উঠে আসছে সাকিব-মুস্তাফিজের লড়াই। নিয়ম অনুযায়ী আইপিএলের এলিমেনেটর পর্বে মুখোমুখি হবে দল দুটি আগামী ২৫ মে। যারা হারবে, তারা বাদ। জয়ী দল এগিয়ে যাবে ফাইনালে পথে। প্রশ্ন হচ্ছে, কে যাবে ফাইনালে পথে, সাকিব না মুস্তাফিজ। বাংলাদেশের ক্ষেত্রে মধুর সমস্যায় পড়ে গেছে অনেক দর্শক। সাকিব না মুস্তাফিজ, কাকে সমর্থন জানাবে সবাই। তবে বয়সে তরুণ আর বিস্ময়কর পেস কাটারের বদৌলতে এবার মুস্তাফিজের সমর্থনের পাল্লা যে ভারী, তা স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে।
বুধবার দিল্লিতে প্রথম এলিমিনেটর ম্যাচ খেলবে হায়দরাবাদ ও কলকাতা। যে জিতবে তাদের খেলতে হবে দ্বিতীয় এলিমিনেটর ম্যাচ। এর আগে মঙ্গলবার প্লে-অফে মুখোমুখি হবে গুজরাট লায়ন্স ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। যারা জিতবে তারা চলে যাবে ফাইনালে। পরাজিত দল ফাইনালে ওঠার আরেকটি সুযোগ পাবে। দ্বিতীয় এলিমিনেটর ম্যাচ খেলবে তারা।
কিন্তু আইপিএলের পরিসংখ্যানে কলকাতার বিরুদ্ধে হায়দরাবাদের অবস্থা নাজুক। চলতি আইপিএলে লিগ পর্বে দুইবার মুখোমুখি হয়েছে দল দুটি। দুইবার জিতেছে কলকাতা, হেরেছে মুস্তাফিজ শিবির। এবার শেষ হাসিটা কারা হাসে, সেটাই দেখার বিষয়।