mobile talking.jpgনতুন একটি গবেষণায় মোবাইল ফোনের বা মুঠোফোনের সাথে ক্যান্সারের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ পাওয়া গেছে। বিশ্লেষণ পর্যালোচনাধর্মী এই গবেষণাটি করেছে মার্কিন সরকার। মুঠোফোন ব্যবহার কিভাবে শরীরের জন্য ক্ষতিকর হয়ে দেখা দিতে পারে, তার ওপর গবেষণা করতে গিয়েই বেরিয়ে এসেছে এই তথ্য।
ন্যাশনাল টেক্সিকোলজি প্রোগ্রামের গবেষকরা পুরুষ ইঁদুরের উপর মুঠোফোন থেকে যে ধরনের তেজস্ক্রিয়তা নিঃসরিত হয় সেটা প্রয়োগ করে এই গবেষণা করেছেন। এর ফলে প্রাণীর শরীরে দুই ধরনের টিউমারের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। বিশেষ করে মস্তিষ্কে ও হৃদপিণ্ডে। কিন্তু যে সমস্ত ইঁদুর তেজস্ক্রিয়তা থেকে দূরে ছিল তাদের শরীরে টিউমার পাওয়া যায় নি।
দুই বছরব্যাপী এই গবেষণায় প্রায় আড়াই হাজার ইঁদুর ব্যবহার করা হয়েছে। গবেষণা প্রতিবেদনের পাশাপাশি গবেষকরা বলেছেন, ‘সারা বিশ্বব্যাপী সব বয়সের মানুষ যে পরিমাণ মুঠোফোন ব্যবহার করে, তেজস্ক্রিয়তার কারণে তাদের মধ্যে রোগব্যাধি সামান্য পরিমাণে বাড়লেও সেটা জনস্বাস্থ্যের উপরে বড় প্রভাব ফেলে।’
মুঠোফোন ও ক্যান্সারের যোগাযোগ নিয়ে করা নতুন এই গবেষণাটিকে বলা হচ্ছে এযাবতকালের সবচেয়ে বড় এবং গভীর বিশ্লেষণধর্মী গবেষণা। এতে মার্কিন সরকারের খরচ হয়েছে আড়াই কোটি ডলার।
ন্যাশনাল টেক্সিকোলজি প্রোগ্রামের গবেষক রন মেলনিক ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে বলেছেন, ‘অনেক মানুষ বলে যে, মুঠোফোন ব্যবহারে কোন ঝুঁকি নেই। এবার আর সেটা বলা সম্ভব না। ঝুঁকি আছে।’