Brazil1465790022শতবর্ষী কোপা আমেরিকার গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিয়েছে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। বাংলাদেশ সময় সোমবার সকালে অনুষ্ঠিত ম্যাচে পেরুর বিপক্ষে ১-০ গোলে পরাজিত হয়ে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয় ব্রাজিল।
প্রথম ম্যাচে ইকুয়েডরের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করেছিল। দ্বিতীয় ম্যাচে হাইতির বিপক্ষে ৭-১ গোলে জিতেছিল। কিন্তু শেষ ম্যাচে হেরে যাওয়ায় বিদায় নিতে হলো নেইমার বিহীন ব্রাজিলকে
এ ম্যাচে পরাজয়ের ফলে তিন ম্যাচে ব্রাজিলের পয়েন্ট দাঁড়ায় ৪ এ। সমসংখ্যক ম্যাচে পেরুর পয়েন্ট ৭। অন্যদিকে এই গ্রুপে সোমবার হাইতিকে ৪-০ গোলে পরাজিত করে ইকুয়েডর। ফলে তাদের পয়েন্ট দাঁড়ায় ৫ এ। শীর্ষ দুই দল হিসেবে ‘বি’ গ্রুপ থেকে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে পেরু ও ইকুয়েডর।
ইকুয়েডর যে দুর্বল প্রতিপক্ষ হাইতিকে হারিয়ে দেবে, তা অনেকটাই অনুমেয় ছিল। তাই ব্রাজিল ও পেরুর সামনে সমীকরণটা এমন ছিল, যে দলই পরাজিত হবে তারাই টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়বে। তাই পরাজয় এড়াতে ম্যাচের শুরু থেকে দুই দলই মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে। তবে ম্যাচের প্রথমার্ধে দুই দলই বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করলেও গোল আদায় করতে পারেনি।
দ্বিতীয়ার্ধে প্রথম আধা ঘণ্টায় কোনো দলই গোলের দেখা পায়নি। মনে হচ্ছিল, ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হতে যাচ্ছে। ঠিক সে সময় ম্যাচের ৭৫ মিনিটে ব্রাজিলের সমর্থকদের হতাশায় ডুবিয়ে পেরুর পক্ষে গোল এনে দেন রুইদিয়াজ।
তবে পেরুর গোলটি নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। টিভি রিপ্লেতে স্পষ্ট দেখা গেছে, ডান দিক থেকে আসা ক্রসে হাত দিয়ে বল জালে পাঠিয়ে দেন রুইদিয়াজ। ব্রাজিলের খেলোয়াড়রা গোলটিকে ‘হ্যান্ড বল’ বলে রেফারির কাছে দাবি জানায়। তবে রেফারি সে আবেদন কানে না তুলে গোল হিসেবে বিবেচনা করেন।
খেলার বাকি সময় চেষ্টা করেও ব্রাজিল গোল পরিশোধ করতে না পারলে ১-০ গোলে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিতে হয়।
পরিসংখ্যানের পাতায় ব্রাজিল অনেক এগিয়ে ছিল। দুই দলের মুখোমুখি লড়াইতে ১৯৮৫ সালের পর ব্রাজিলকে হারাতে পারেনি পেরু। কিন্তু এবার কোপা আমেরিকায় তারা সেই রেকর্ড ভেঙে দিল।
বড় দলগুলোর মধ্যে এবার সবার আগে বিদায় নিয়েছে উরুগুয়ে। কোপায় সবচেয়ে সফল দলটি নিজেদের সেরা খেলোয়াড় সুয়ারেজকে মাঠে নামাতে পারেনি। এদিকে অলিম্পিকের জন্য নেইমারকে পায়নি ব্রাজিল। দুটি দলই প্রথম রাউন্ড থেকে বিদায় নিল। তবে মেসির জাদুতে ইতোমধ্যে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে আর্জেন্টিনা।