england-srilonka lordsড্র হয়ে গেলো লর্ডস টেস্ট। এই ড্রয়ের পেছনে শ্রীলংকার যতটা না কৃতিত্ব তার চেয়ে বেশি কৃতিত্ব বৃষ্টির। চতুর্থ ও পঞ্চম দিনে বৃষ্টির উৎপাতে যা খেলা হয়েছে তাতে লর্ডস টেস্টের ফল পাওয়া সম্ভব ছিল না। হলোও তাই। তিন টেস্টের সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্ট ড্র হওয়ায় ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিলো ইংল্যান্ড।
লর্ডস টেস্টের শেষ দিনে জয়ের জন্য শ্রীলঙ্কার প্রয়োজন ছিল ৩৩০ রান, আর ইংল্যান্ডের ১০ উইকেট। জমজমাট এক শেষ দিনেরই আভাস দিচ্ছিল। কিন্তু বেরসিক বৃষ্টি আর সেটা হতে দিল কই!শেষ দিনে খেলাই হলো মোটে ২৪.২ ওভার। ম্যাচও তাই শেষ পর্যন্ত নিষ্প্রাণ ড্র। এতে অবশ্য লাভ হলো শ্রীলঙ্কারই। প্রথম দুই টেস্ট জিতে আগেই সিরিজ জয় নিশ্চিত করেছিল ইংল্যান্ড। শেষ টেস্ট ড্র হওয়ায় শ্রীলঙ্কা এড়াল হোয়াইটওয়াশ।
চতুর্থ ইনিংসে জয়ের জন্য ৩৬২ রানের পিছু নিয়ে শ্রীলংকা সাকুল্যে খেলতে পেরেছে মাত্র ২৪.২ ওভার। তাতে ১ উইকেট হারিয়ে রান তুলেছে ৭৮। ওপেনার দিমুথ করুনারত্নে ৩৭ ও কুশল মেন্ডিস ১৭ রানে অপরাজিত ছিলেন। ১৬ রানে আউট হয়ে গিয়েছেন কুশল সিলভা। ২৭ রানে একমাত্র উইকেটটি পেয়েছেন জেমস অ্যান্ডারসন।
এরআগে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৭১ ওভারে ৭ উইকেটে ২৩৩ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে ইংল্যান্ড। সর্বোচ্চ ৯৪ রান করেন ওপেনার অ্যালেক্স হেলস। ১৭৯ বলে খেলা তার এই ইনিংসে ছিল দশটি চার ও একটি ছয়। ৮৬ বলে ৪৯ রানে অপরাজিত ছিলেন অ্যালিস্টার কুক। ৩টি করে উইকেট পান শামিন্দা ইরাঙ্গা ও নুয়ান প্রদীপ।
জনি বেয়ারস্টোর ক্যারিয়ার সেরা ১৬৯ রানের ওপর ভর করে ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে তুলেছিল ৪১৬ রান। ৮১ রানে ৪ উইকেট পেয়েছিলেন রঙ্গনা হেরাথ। জবাবে ভালো শুরু করেও শ্রীলংকার প্রথম ইনিংস ৯৫.১ ওভারে গুটিয়ে গিয়েছিল ২৮৮ রানে। সর্বোচ্চ ৭৯ রান করেন কুশল সিলভা। ফিন ও ক্রিস ওকস নেন ৩টি করে উইকেট।
অনবদ্য ব্যাটিংয়ের কল্যাণে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতেছেন জনি বেয়ারস্টো। ম্যান অব দ্য সিরিজের পুরস্কার দেওয়া হয়েছে যৌথভাবে। একজন জনি বেয়ারস্টো, অন্যজন কুশল সিলভা।

Advertisements