Liton-Das abahoniবুধবার সাভারের বিকেএসপিতে রানের বন্যা বইয়ে দিয়েছেন তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসানদের আবাহনী লিমিটেড। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মোহামেডানের বিপক্ষে আগে ব্যাটিং করে মাত্র ৫ উইকেটে ৩৭১ রান সংগ্রহ করে আবাহনী লিমিটেড। যা বাংলাদেশে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে সর্বোচ্চ দলীয় রান।
এর আগে ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ২০০৯/১০ সালে ইংল্যান্ড একাদশ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড একাদশের বিপক্ষে ৭ উইকেটে ৩৭০ রান করেছিল। এছাড়া ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে সর্বোচ্চ রান ছিল লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের। ২০১৪/১৫ মৌসুমে ওল্ড ডিওএইচএসের বিপক্ষে ৩৫৭ রান করেছিল রূপগঞ্জ।
বিকেএসপিতে ইতিহাস গড়ার দিনে তামিমের ব্যাট হাসেনি। ২২ রান আসে ড্যাশিং ওপেনারের ব্যাট থেকে। তবে জ্বলে উঠেন পুরো প্রিমিয়ার লিগে রান খরায় থাকা লিটন দাস। ১৩৯ রান করে আবাহনীর বড় ভিত এনে দেন ডানহাতি এ ওপেনার। ১২৫ বলে ১৮ চার ও ১ ছক্কায় সাজানো ইনিংসটি ছিল দূর্দান্ত।
লিটনের সেঞ্চুরির সৌজন্যেই বিকেএসপিতে মোহামেডানের বিপক্ষে ৫ উইেকেট ৩৭১ রানের পাহাড় গড়ল আবাহনী। এবারের লিগের সর্বোচ্চ ইনিংস তো বটেই, প্রিমিয়ার লিগেই এটা এক ইনিংসে সর্বোচ্চ রান কিনা, বিকেএসপিতে গবেষণা চলছে তা নিয়েও। তবে একটা ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই। লিস্ট ‘এ’ মর্যাদা পাওয়ার পর প্রিমিয়ার লিগে এটাই সবচেয়ে বেশি রানের ইনিংস।
সেঞ্চুরি (৯৭ বলে ১০৯) করেছেন ভারতীয় বাটসম্যান দীনেশ কার্তিক, সাকিব আল হাসানের ব্যাটেও উঠেছে ঝড়। চার ছক্কায় মাত্র ২২ বলে ফিফটি। নাঈম ইসলামের বলে ওয়াইডিশ লং অনে ক্যাচ দেওয়ার আগের দুই বলে সাকিব মেরেছেন পর পর দুই ছক্কা। ফিফটি পূর্ণ হয়েছিল তারই প্রথমটিতে। ২৪ বলে ৫৭ রানের ইনিংসে উইকেটে ছিলেন ৪৪ মিনিট। তার প্রায় পুরোটাই ভরিয়ে দিয়েছেন ব্যটিং বিনোদনে।শেষ দিকে ঝড় তুলেন সাকিব আল হাসান। ২৪ বলে বাঁহাতি এ ব্যাটসম্যান করেন ৫৭ রান। ইনিংসে ছিল ২টি চার ও ৫টি ছয়ের মার।তবে সাকিব-কার্তিকরা এত আগ্রাসী হয়ে নাও উঠতে পারতেন, যদি না লিটন খেলতেন ওই নান্দনিক ইনিংসটা।
সব মিলিয়ে বিকেএসপিতে দিনের শুরুটা দারুণ কেটেছে আবাহনীর। ব্যাট হাতে ঝড় তুলে আবাহনী মোহামেডানকে রানের পাহাড়ের চাপে আটকে দিয়েছে। শেষটাও মধুর হয় কিনা সেটাই দেখার বিষয়।