electrict plaen.jpgইলেকট্রিক বাইক, ইলেকট্রিক কারের পর এবার আসছে ইলেকট্রিক প্লেন। এই ইলেকট্রিক প্লেনের ডিজাইন করেছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। নাসার এই ই-প্লেনটির নাম দেয়া হয়েছে ম্যাক্সওয়েল। এটি এক্স-৫৭ প্রজেক্টের মাধ্যমে তৈরি হবে।
নাসার প্রশাসক চার্লস বোলডেন গত শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংডন ডিসিতে অনুষ্ঠিত বাৎসরিক এভিয়েশন সম্মেলনে নাসার বিদ্যুৎ চালিত এই বিমানটির ডিজাইন উন্মোচন করেন। এসময় তিনি বলেন, ‘নাসার এই বিমান নতুন দিগন্তের উন্মোচন করবে। অ্যাভিয়েশন সেক্টরে এই বিমান হবে রোল মডেল। নাসা এই ধরনের বিমান তৈরির জন্য দীর্ঘদিন ধরে গবেষণা করছে।’
নাসার এই বিমানটি জেমস ক্লার্ক ম্যাক্সওয়েলের নামে রাখা হয়েছে। ম্যাক্স ১৯ শতকের স্কটিশ বিজ্ঞানী। যিনি ইলেকট্রোম্যাগনেটিক গবেষনায় পথিকৃৎ ছিলেন।
এই ই-প্লেনটি নাসার স্কেলেবল কনভার্জেন্ট ইলেকট্রিক প্রোপালসন অপারেশন্স রিসার্স প্রজেক্ট থেকে তৈরি হবে।
এক্স-৫৭ দেখতে অনেকটা ইতালির ডিজাইনে তৈরি টেকনাম পি২০০৬টি টুইন ইঞ্জিন লাইট এয়াক্রাফটের আদলে তৈরি হবে। এর ডানা এবং ইঞ্জিন পরিবর্তন করা হবে। এতে থাকবে ১৪টি ইলেট্রিক মোটর। যার মধ্যে ১২টি টেকঅফ এবং ল্যান্ডিয়ের জন্য ব্যবহার করা হবে। অন্য দুইটি মোটর আকাশে বিমানটিকে স্থির রাখতে সাহায্য করবে।
নাসা মনে করছে ই-প্লেন তৈরি হলো যেমন জ্বালানি সাশ্রয় হবে তেমনি করে বিমানের পরিচালনা খরচও কমবে।
নাসার ই-প্লেন সম্পূর্ণ ব্যাটারি দ্বারা পরিচালিত হবে।