china tornedo.jpegচীনের পূর্বাঞ্চলীয় জিয়াংজু প্রদেশে শক্তিশালী টর্নেডো ও শিলাবৃষ্টিতে শতাধিক নিহত হয়েছেন। বিবিসি’র এক প্রতিবেদনে জানানো হয় ৯৮ জন নিহত ও অনেকেই নিখোঁজ রয়েছেন। নিখোঁজদের মধ্যে অনেকেই নিহত হয়েছেন বলে আশংকা করা হচ্ছে।
দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, ঝড়ে প্রদেশের ঘরবাড়ির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এবং কমপক্ষে ৮০০ মানুষ আহত হয়েছেন।
ব্যাপক ধ্বংসলীলার প্রেক্ষাপটে শুক্রবার উদ্ধার প্রচেষ্টা জোরদার করা হয়েছে। এতে আরো কয়েকশ’ লোক আহত হয়েছে।
চীনের সরকারি বার্তা সংস্থা জানায়, ইয়ানচেং নগরীতে প্রতি ঘন্টায় সর্বোচ্চ ১২৫ কিলোমিটার বেগে ঝড় আঘাত হানায় বহু গ্রাম পুরোপুরি লন্ডভন্ড হয়ে যায় এবং অনেক গাছপালা উপড়ে পড়ে।খবর : বাসস
স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে সিনহুয়ার খবরে বলা হয়, এ পর্যন্ত ৯৮ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হয়েছে। ঝড় ও টর্নেডোর আঘাতে আরো প্রায় ৮শ’ জন আহত হয়েছে।
বার্তা সংস্থা জানায়, চীনের অর্ধ-শতাব্দীর ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ টর্নেডো ও জিয়াংজুতে এ যাবতকালের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগের পর প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং ‘সার্বিকভাবে উদ্ধার প্রচেষ্টা জোরদার’ করার নির্দেশ দিয়েছেন।
এতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোর অন্যতম ফানিং কাউন্টির বাসিন্দা সান ইয়াঝু টর্নেডোর সময় পাথর মেশানোর একটি ট্রাক চালাচ্ছিলেন। ঝড়ের আঘাতে তার গাড়ির জানালার গ্লাস উড়ে যায়।
তিনি এএফপিকে বলেন, ‘আকাশ সম্পূর্ণরূপে মেঘাচ্ছন্ন ছিলো। এতে আমি প্রচন্ড ভয় পেলেও কোথাও যেতে পারছিলাম না। আমি এটা চলে যাওয়ার অপেক্ষায় ছিলাম।’