tia.jpgএকটি টিয়াপাখি ধরিয়ে দিল খুনিকে৷ আমেরিকায় একজন স্ত্রীর বিরুদ্ধে তার স্বামীকে খুন করার অভিযোগ ওঠে৷ গ্লেনা ডুরামের বিরুদ্ধে তার স্বামী মার্টিন ডুরামকে হত্যা করার অভিযোগ দায়ের হয়৷ গত বছর মে মাসে মার্টিনের বাড়ি থেকেই তার দেহ মেলে৷ তাদের বাড়ি মিচিগানের স্যান্ড লেকে৷
মার্টিনকে তার স্ত্রী গ্লেনার পাশ থেকেই মৃত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছিল৷ মার্টিনের পরিবার বলে যে এই টিয়াপাখিটি মার্টিনদের পোষা পাখি৷ সেই পাখিটি এই কেসের অন্যতম সাক্ষী হয়ে দাঁড়ায়৷
হত্যাকাণ্ডটির পর একটি ভিডিওর ভিত্তিতে এমনটাই জানা গিয়েছে৷ তার মৃত্যুর পর থেকেই টিয়াপাখিটি চিৎকার করতে শুরু করে৷ বিভিন্নভাবে যেন কিছু বোঝানোর চেষ্টা করে৷
নেওয়াগোর অ্যাটর্নি রবার্ট স্পিংস্টিড বলেছেন তিনি পাখিদের ভাষা বোঝার জন্য চর্চা করেছেন৷ পাখিটির কথা থেকেই তার তদন্ত করতেও অনেক সুবিধা হয়েছে৷তিনি আরো জানিয়েছেন তার একবার আফ্রিকান তোতাপাখি সম্পর্কে জানার সুযোগ হয়েছিল আর সেই জানাই তাকে এই কেসে এতটা সাহায্য করল৷ বিচারের জন্য নির্ভরযোগ্য তথ্য পেতে সাহায্য করল এই টিয়া৷
পুলিশের তরফ থেকে জানা গিয়েছে এই ঘটনা সম্পর্কে গ্লেনা ডুরামকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন আমি এই ঘটনা সম্পর্কে সব কিছুই জানি কিন্ত আমি আমার স্বামীকে খুন করিনি৷
তদন্তকারীরা এই ঘটনাটিকে একটি চক্রান্ত কিংবা আত্মহত্যা বলে দাবি করছেন৷ ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে পুলিশ গ্লেনার লেখা তিনটি সুইসাইড নোট পায়৷ পুলিশি তদন্ত আরো একটি বিষয় সামনে নিয়ে আসছে তা হল এই ডুরাম দম্পতির অর্থনৈতিক সমস্যা ছিল৷ তবে ঠিক কী কারণে এই হত্যাকান্ডটি হল তা এখনও স্পষ্ট নয় পুলিশের কাছে৷
গ্লেনার লেখা তার সুইসাইড নোটে তার সন্তানের কাছে ক্ষমা চাওয়া হয়েছে ও বলা হয়েছে তাকে ভুলে যেতে৷