digombor.jpegবেলারুশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি খুবই নাজুক। কয়েক দশকের মধ্যে এতটা নাজুক অবস্থায় আর কখনোই পৌঁছেনি। ডলারের বিনিময় মূল্য হ্রাস পেয়েছে। বেকারত্মের সংখ্যা বেড়ে গেছে ব্যাপকভাবে। কিন্তু এ অবস্থায় কি করতে পারে বেলারুশের লোকজন। কঠোর পরিশ্রম করা ছাড়া কি এই দুরাবস্থা কাটিয়ে উঠতে পারবে তারা?
একথা মাথায় রেখে বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কো দেশের লোকজনকে কঠোর পরিশ্রম করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘ঘাম না ঝরা পর্যন্ত কাজ করুন। প্রয়োজনে কাপড় খুলে কাজ করুন।’
এই আবেগময় আহ্বান জানানোর অবশ্য অনেক কারণ আছে। তবে খবরে একটি কারণের কথাও উল্লেখ করা হয়নি।
প্রেসিডেন্টের আহ্বানে বেলারুশিয়ানরা সাড়া দিয়েছেন ঠিকই। কিন্তু কিছু কিছু নাগরিক তার আহ্বানের আভিধানিক অর্থের চেয়ে একটু বেশিই সাড়া দিয়েছেন, লুকশেঙ্কো যেমনটা প্রত্যাশাই করেননি। প্রসঙ্গক্রমে উল্লেখ করা যায় যে, অনেকে আদর করে তাকে বাবা বলে ডাকেন।
যে যেভাবে পারছেন কাজ করছেন। কর্মক্ষেত্রে ছবি তোলার জন্য পোজও দিয়েছেন তারা। আর এসব কাজ করছেন বিবস্ত্র হয়ে। কেউ কেউ আবার সেই ছবি পোস্টও করেছেন সামাজিক গণমাধ্যমে। সে সঙ্গে আবার হ্যাস্ট্যাগও করেছেন কেউ কেউ। কিন্তু ছবি পাঠিয়েও ক্ষান্ত হননি তারা। প্যারোডিও বানিয়েছেন প্রেসিডেন্টের ভাষণ নিয়ে।
লুকাশেঙ্কোর এই আহ্বান শুধু তার দেশের সীমান্তে আটকে নেই। সীমানা পেরিয়ে চলে গেছে প্রতিবেশি দেশে। যেমন, রাশিয়া, ইউক্রেন ও বাল্টিক সাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলোর অধিবাসীরাও সাড়া দিয়েছেন। পাঠিয়ে দিয়েছেন তারা তাদের তাদের কর্মক্ষেত্রের ছবি। অবশ্যই বিবস্ত্র হয়ে।
আর আগুনে ঘি ঢেলেছে পূর্ব ইউরোপে বিরাজমান গরম আবহাওয়া। প্রতিদিনই নতুন নতুন লোক সাড়া দিচ্ছেন তার আহ্বানে।