ronaldo & messi.jpgলিওনেল মেসি কি সত্যিই দুর্ভাগা? ক্লাবের হয়ে এত সাফল্য, ব্যক্তিগত শোকেজে ট্রফির স্তূপ কিন্তু জাতীয় দলের হয়ে কিছুই নেই মেসির! সাফল্যমণ্ডিত ক্যারিয়ারে জাতীয় দলকে দেওয়ার মতো অনেক সুযোগ পেয়েছেন মেসি। কিন্তু পারেননি! নিজেও পারেননি, সতীর্থরাও ব্যর্থ হয়েছেন। ফলে সাফল্যের মুকুট পরা হয়নি। তবে একটা প্রশ্ন, মেসি একা কতটুকুই বা করবেন? লড়াইটা তো ১১ জনের সমান।
এবারের কোপা আমেরিকার ফাইনালের কথাই ধরা যাক। চিলির বিপক্ষে মেসির সতীর্থ গঞ্জালো হিগুয়েন কি করেছেন? সহজ দুটি সুযোগ হাতছাড়া করেছেন এই ফরোয়ার্ড খেলোয়াড়। গোলকিপারকে একা পেয়েও নিশ্চিত গোল মিস করেন হিগুয়েন। বিশ্লেষকদের মতে, এটা ছিল চোখ বন্ধ করে গোল করার মতো সুযোগ। তার কারণেই শিরোপাবঞ্চিত আর্জেন্টিনা দল! হতে পারে সেটা অঘটন।
কিন্তু বিশ্বকাপ ফাইনালের কথা মনে আছে? একই ভুল করেছেন হিগুয়েন। তার ভুলের কারণে ২০১৪ বিশ্বকাপ হাতছাড়া হয় মেসিদের। টনি ক্রুসের ব্যাক পাস থেকে সহজ সুযোগ পান এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। কিন্তু সেবারও ব্যর্থ হন তিনি। পরবর্তী সময়ে তাকে মাঠ থেকে উঠিয়ে নেন কোচ।
বিশ্বকাপের পর ২০১৫ কোপা আমেরিকায় আবারও ‘খলনায়ক’ হিগুয়েন। সেবার পেনাল্টি শুট আউটে নিজের শট মিস করেন তিনি। তার ব্যর্থতায় মাশুল দিতে হয়েছে আর্জেন্টিনাকে, শিরোপা হাতছাড়া হয়ে গেছে। মেসির কপালটা সত্যিই পোড়া! না হলে কি বিশ্বসেরা ফুটবলে টানা তিন বছরে তিনটি শিরোপা হাতছাড়া করেন?
এবার মেসির চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর কথা বিবেচনা করা যায়। রোববার রাতে ইউরোর শিরোপা জিতে নেয় ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল। টুর্নামেন্টের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত রোনালদোর পারফরম্যান্স ছিল ‘অ্যাভারেজ।’ তিনটি গোল ও দুটি অ্যাসিস্ট। কিন্তু গোল ও অ্যাসিস্টের থেকেও বড় কিছু করেছেন রোনালদোরা। সেটা হলো দলের প্রত্যেককে এক কাতারে নিয়ে এসে বিশেষ কিছু করতে উদ্বুদ্ধ করেছেন। রোনালদো মন্ত্রে পর্তুগাল সফল।
শুরু থেকে ফিট থাকলেও ফাইনাল ম্যাচে মাত্র ২৪ মিনিট মাঠে থাকেন রোনালদো। এরপর স্ট্রেচারে শুয়ে মাঠ ছাড়েন পর্তুগিজ অধিনায়ক। রোনালদো মাঠ ছাড়লেও সতীর্থরা এক মুহূর্তের জন্য হাল ছাড়েননি। ঠিকই রোনালদোর জন্য লড়ে গেছেন। রোনালদোকে শিরোপা উপহার দিয়েছেন।
রোনালদো মাঠ ছাড়ার পর সতীর্থ পেপে দলের সবার উদ্দেশে বলেন, ‘রোনালদো আমাদের সঙ্গে নেই, আমাদের উচিত তার জন্য হলেও এ ম্যাচ জেতা।’ ফাইনালের ম্যাচসেরা পেপে তার কথা রেখেছেন ঠিকই। রোনালদোকে শিরোপা উপহার দিয়েছেন। এখানেই ভাগ্যবান রোনালদো। সতীর্থরা তার প্রত্যাশা পূরণ করেছেন, দিয়েছেন প্রথম আন্তর্জাতিক শিরোপার স্বাদ। মেসির সতীর্থরা এদিক থেকেই পিছিয়ে। এ কারণেই আর্জেন্টিনার হয়ে এখনো শিরোপা খরা কাটাতে পারেননি ফুটবলের জাদুকর মেসি।

Advertisements