world leader.jpgফ্রান্সের দক্ষিণাঞ্চলীয় নিস শহরে বাস্তিল দিবসের উৎসবে জড়ো হওয়া জনতার উপর দ্রুত গতিতে ট্রাক চালিয়ে দেওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন বিশ্বনেতারা। এ ঘটনায় নিহতদের পরিবারের প্রতি শোক ও সমবেদনার পাশাপাশি ‘সন্ত্রাসবাদী হামলা’ রোধে একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার করেন তারা।
নিস হামলার ঘটনাকে ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী হামলা আখ্যায়িত করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। এক বিবৃতিতে তিনি জানান, ফ্রান্স যুক্তরাষ্ট্রের পুরাতন মিত্রদের একজন। এ হামলায় নিহতদের পরিবারের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের জনগণের সহমর্মিতা থাকবে।
যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেন, ফ্রান্সের এ রকম দুঃখজনক ঘটনার সময় তাদের পাশে থেকে যেকোনো ধরনের সাহায্য করতে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র।
জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেল বলেন, সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলায় ফ্রান্সের পাশে থাকবে জার্মানি।
কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এক টুইটার বার্তায় বলেন, নিসে হামলার ঘটনায় কানাডাবাসী শোকাহত। হতাহতদের প্রতি গভীর সমবেদনা ও ফ্রান্সের জনগণের প্রতি আমরা সংহতি প্রকাশ করছি।
নতুন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেজা মে’র এক মুখপাত্র হামলার ঘটনাটিকে ‘একটি ভয়াবহ ঘটনা’ উল্লেখ করে বলেন, ‘আমরা শোকাহত ও উদ্বিগ্ন।’
ব্রিটেনের নতুন পররাষ্ট্র মন্ত্রী বরিস জনসন এক টুইটার বার্তায় বলেন, নিসে ভয়াবহ এ ঘটনায় আমরা শোকাহত।
নিউইয়র্কের মেয়র বিল দে টুইটার বার্তায় বলেন, কান্ডজ্ঞানহীন আরো একটি হামলায় তিনি অসুস্থ বোধ করছেন।
চীনা প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াং হতাহতের ঘটনায় শোক প্রকাশ করে বলেন, চীন সব ধরণের সন্ত্রাসের বিরোধিতা করে।
এছাড়া এ হামলার ঘটনায় শোক জানিয়েছেন ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্ক, ব্রাজিলের অন্তর্বতীকালীন প্রেসিডেন্ট মাইকেল তেমার, ল্যাতিন আমিরাকা এবং ভ্যাটিকানের নেতারা।