ronaldineho, messi, naymar.jpgরোনালদিনহো তখন ফর্মের তুঙ্গে। ইউরোপ মোহাবিষ্ট ব্রাজিলিয়ান জাদুকরের কারিকুরিতে। ঠিক ওই সময় বার্সেলোনায় যাত্রা শুরু লিওনেল মেসির। একসময় তো মেসির কাছেই রাজ্যপাট বুঝিয়ে দিয়ে চলে গেলেন রোনালদিনহো। তবে মেসি আজও ভোলেননি, তাঁকে রাজা বানিয়েছে কে। সেই ঋণ শোধ করছেন আজও। নেইমারকে দিয়ে!
নেইমার বার্সেলোনায় এসেছেন তিন মৌসুম হলো। মেসির কাছ থেকে তিনিও যেন রাজ্যপাট বুঝে নেওয়ার জন্য তৈরি হচ্ছেন। দ্রুত ইউরোপের ফুটবলে নেইমার যে শক্ত জায়গা করে নিলেন, সে জন্য মেসিকে আলাদা করে ধন্যবাদ দিচ্ছে কে জানেন? সেই রোনালদিনহোই!
রোনালদিনহো আরো বলেন, আর্জেন্টিনার লিওনেল মেসি আন্তর্জাতিক ম্যাচে না ফিরলে তাতে ফুটবলেরই ক্ষতি। কোনো আন্তর্জাতিক শিরোপা জিততে না পারলেও মেসিই এখন বিশ্বের সেরা ফুটবলার বলে মনে করেন ২০০২ বিশ্বকাপ জয়ী তারকা।
ভারতে একটা ফুটসাল টুর্নামেন্ট খেলতে এসেছেন সাবেক বার্সেলোনা মিডফিল্ডার। সেখানেই কথা বললেন মেসি-নেইমারকে নিয়ে। মেসি যখন বার্সায় নাম লিখিয়েছেন, রোনালদিনহো তাঁকে কাছে টেনে নিয়েছিলেন পরম অগ্রজের মতো। এখন মেসি যা করছেন নেইমারের বেলায়। এখানে এসে যেন ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা মিশে যাচ্ছে একই মোহনায়। অদ্ভুত এক ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে।
রোনালদিনহো এত দিন পর প্রায় এক যুগ আগের ওই সময়ে ফিরে গেলেন, ‘মেসি যখন দলে এসেছিল, ওর বয়স ছিল খুবই কম। তার সম্ভাবনা ছিল অনেক বেশি। ওর সঙ্গে খেলাটা আমি দারুণ উপভোগ করতাম। শুধু মাঠ নয়, মাঠের বাইরেও ওর সঙ্গ অনেক উপভোগ করেছি।’
নেইমার-মেসির মধ্যেও যেন সেই ছায়া দেখতে পাচ্ছেন রোনালদিনহো। মাঠ তো বটেই, মাঠের বাইরেও নেইমার-মেসি এখন অনেকটাই যে হরিহর আত্মা। রোনালদিনহো মনে করিয়ে দিয়েছেন, ‘মেসির সঙ্গে আমি যা করেছিলাম, নেইমারের সঙ্গে মেসি সেটাই করছে। খুবই ভালো লাগছে। দলে সিনিয়রদের কাছ থেকে আপনি এটাই আশা করবেন।’
মেসির জাতীয় দল থেকে অবসর ঘোষণায় ব্যথিত রোনালদিনহোও। তাঁরও আশা, মেসি সিদ্ধান্তটা ভেবে দেখবেন। বলেছেন, আন্তর্জাতিক ফুটবলে এখনই মেসির না থাকাটা হবে ফুটবলেরই ক্ষতি। এর থেকেই বোঝা যায়, এখন মেসিকে কতটা ভালোবাসেন রোনি! টাইমস অব ইন্ডিয়া।