HillaryClinton.jpgযুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রাট দলীয় প্রার্থী হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়নপত্র গ্রহণ করলেন হিলারি ক্লিনটন। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) রাতে যুক্তরাষ্ট্রের ফিলাডেলফিয়ায় ডেমোক্র্যাটিক পার্টির ন্যাশনাল কনভেনশনে এ মনোনয়নপত্র গ্রহণ করেন তিনি।
এ সময় ঐতিহাসিক এক দীর্ঘ বক্তৃতা রাখেন হিলারি। ভাষণের শুরুতেই বর্তমান প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাকে ধন্যবাদ জানান তিনি। এছাড়া রানিংমেট টিম কেইনের প্রশংসার পাশাপাশি মনোনয়ন দৌড়ে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বার্নি স্যান্ডার্সের প্রতিও কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।
হিলারি ক্লিনটন তার ভাষণে,  আমেরিকার জনগণকে একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান।
প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে মার্কিন জনগণকে ডেমোক্র্যাট বা রিপাবলিকান দৃষ্টিভঙ্গিতে না দেখে সবার জন্য কাজ করে যাওয়ার অঙ্গীকার করেন তিনি।
প্রতিদ্বন্দ্বী রিপাবলিকান দলীয় প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমালোচনা করে তিনি বলেন, বহির্বিশ্বের পাশাপাশি এমনকি  নিজেদের মধ্যেও বিচ্ছেদ ঘটাতে চান ট্রাম্প।
‘ভোরের আলো’ থেকে ট্রাম্প রিপাবলিকান পার্টিকে ‘মধ্যরাতে’ নিয়ে গেছেন বলেও মন্তব্য করেন হিলারি।
গত ২৫ জুলাই থেকে ২৮ জুলাই পর্যন্ত ফিলাডেলফিয়ার ওয়েলস ফার্গো সেন্টারে চলে ডেমোক্রাট দলের ন্যাশনাল কনভেনশন। এখানে আনুষ্ঠানিকভাবে হিলারি ক্লিনটনকে আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রাট দলের প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করা হয়।
তিনদিনব্যাপী এই কনভেনশনে দলীয় ডেলিগেটদের পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন ডেমোক্রাট দলের সব শীর্ষ নেতৃবৃন্দ।
বক্তব্য রাখেন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা থেকে শুরু করে হিলারি ক্লিনটনের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বার্নি স্যান্ডার্সও। আরও বক্তব্য রাখেন গায়িকা কেটি পেরি ও করিম আব্দুল জব্বারের মত মার্কিন সেলিব্রিটিরা। বক্তব্য রাখেন তার কন্যা চেলসি ক্লিনটনও। বক্তাদের প্রত্যেকেই আসন্ন নির্বাচনে হিলারির প্রতি তাদের দৃঢ় সমর্থন ব্যক্ত করেন।