rupcare_sunburn solution.jpgরোদে পুড়ে ত্বক কালো হয়ে যাওয়া একটি সাধারণ সমস্যা। অবশ্য সূর্যের রশ্মিতে ভিটামিন ডি থাকে। তবে অত্যাধিক সূর্যরশ্মি ত্বক পুড়িয়ে দেয় এবং স্কিন ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়। সূর্য রশ্মির হাত থেকে বাঁচতে অনেকেই সানস্ক্রিন ক্রিম ব্যবহার করেন। কিন্তু তাতেও কাজ হয় না। রোদে পোড়া ত্বকের চাই বিশেষ যত্ন। ত্বকের যত্নে ঘরোয়া কিছু সমাধান দেওয়া হলো—

টমেটো
টমেটোর রসে আছে সাইট্রিক অ্যাসিড। যা প্রাকৃতিক ব্লিচের কাজ করে, পাশাপাশি ত্বককে করে নরম ও কোমল। টমেটোর অর্ধেকটা স্লাইচ করে কেটে পুরো মুখের উপর রাখুন। টমেটোর রস শুকিয়ে যাওয়ার আগ পর্যন্ত রাখতে হবে। অথবা টমেটো মন্ড করে মুখে লাগাতে পারেন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।

লেবু

লেবু টমেটোর মতোই, তবে এতে অতিরিক্ত সাইট্রিক অ্যাসিড আছে। যা প্রাকৃতিক ব্লিচের কাজ করে। অর্ধেক লেবু থেকে রস বের করে পুরো মুখে ভালোভাবে ঘষুন। এটি সামান্য কামড় দিবে, এর মানে হচ্ছে এটি কাজ করছে। অবশ্যই মনে রাখতে লেবু মুখে লাগানোর পর ৩ ঘণ্টা বাহিরে যাওয়া যাবে না। এ কারণে রাতে লাগানোই ভালো।

দধি
রোদে পোড়া ত্বকের সুরক্ষায় দধি বেশ কার্যকর। ত্বককে ঠাণ্ডা এবং মুখের লালচেভাব দূর করতে দধি ব্যবহার করা যেতে পারে। এটি ত্বকের সুরক্ষা মুখোশ হিসেবে কাজ করে। কিছু দধি নিয়ে পুরো মুখে ভালোভাবে লাগাতে হবে। ৫ থেকে ১০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

আলু
আলু প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি আছে। একটা আলুর অর্ধেকটা কেটে ব্লেন্ডার করে পেস্ট বানিয়ে নিন। এটি মুখে ভালোভাবে লাগান এবং শুকিয়ে যাওয়া আগ পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। ভালোভাবে শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

বেসন
ত্বকের সুরক্ষায় বেসন প্রকৃতিক উপায়ে কাজ করে। ত্বকের যে কোন সমস্যায় এটি ব্যবহার করা যায়। ২ চামচ বেসন পাউডারের সঙ্গে দুধ দিয়ে পেস্ট বানিয়ে নিন। এবার এটি ঘড়ির কাটার উল্টো দিকের মতো করে মুখে লাগান। এটি মুখের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক প্রক্রিয়া ঠিক রাখে, মরা চামড়া দূর করে এবং ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে।

চন্দনকাঠ
চন্দনকাঠ ও গোলাপজল মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে মুখে লাগান। এটি ত্বককে আরও সুন্দর করে। নববধূর ফেসপ্যাকে এটি ব্যবহার করা হয়। এটি ত্বককে নরম করে এবং রোদে পোড়াভাব দূর করে। পাশাপাশি ত্বকের উজ্জ্বলতাও বাড়ায়।

rupcare_sunburn solution.jpg