Leopard-bithrum.jpgমধুচন্দ্রিমার ভোর যে দুঃস্বপ্নের রাতে পরিণত হবে, তা মনে হয় স্বপ্নেও ভাবেননি ভারতের মিরাটের নবদম্পতি সুমিত রাঠোর ও শিবানি দম্পতি। রীতিমতো বাঘের পাল্লায় পড়ে আত্মারাম খাঁচাছাড়া হওয়ার জোগাড় হয়েছিল তাদের। হোটেলের যে কক্ষটিতে ছিলেন তারা, সেখানেই হানা দিয়েছিল চিতাবাঘ। রোববার উত্তরাখন্ডের নাইনিতালে এ ঘটনা ঘটে।
সুমিত রাঠোর বলেন, ‘ভোর ৪টা ৪৫ মিনিটে জানালার কাচ ভাঙার শব্দ পেয়ে আমার ঘুম ভেঙে যায়। সেখান দিয়ে একটি চিতাবাঘ প্রবেশ করতে দেখে ভয়ে আমি রীতিমতো জমে গেলাম। আমি দ্রুত স্ত্রীকে নিয়ে কম্বলের নিচে চলে গেলাম। এর ফাঁক দিয়ে দেখলাম চিতাবাঘটি সোজা আমাদের বাথরুমে প্রবেশ করল। আমি দ্রুত ছুটে গিয়ে বাথরুমের দরজাটি বাইরে দিয়ে বন্ধ করে দিলাম এবং হোটেল কর্তৃপক্ষকে ফোনে বিষয়টি জানালাম।’
খবর পেয়ে বন বিভাগের কর্মকর্তারা খাঁচা ও ট্রাঙ্কুলাইজার বন্দুক নিয়ে হোটেলে হাজির হন। কিন্তু চিতাবাঘটি বাথরুমের ভেন্টিলেটর দিয়ে বের হয়ে জঙ্গলে পালিয়ে যায়।
বন বিভাগের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, চিতাবাঘটির বয়স দেড় বছর। কুকুরের তাড়া খেয়ে এটি হোটেলে প্রবেশ করেছিল।

ভিডিও: