A+man+walks+down+a+street.jpgইতালিতে প্রতি বছর যে বিপুল পরিমাণ খাদ্যের অপচয় হয়, তা ঠেকাতে নতুন একটি আইন পাস করেছে দেশটির পার্লামেন্ট। এ আইনের আওতায় গুচ্ছ কার্যক্রম নেওয়া হলে প্রতি বছর এক মিলিয়ন টন খাদ্য নষ্ট হওয়ার হাত থেকে বাঁচানো যাবে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।
বুধবার ইতালির পার্লামেন্টে ১৮১ জন সদস্যের সমর্থনে বিলটি পাস হয়। দুইজন সিনেটর পার্লামেন্টে এ আইনের বিরোধিতা করেন, অনুপস্থিত ছিলেন ১৬ জন।
বিবিসির প্রতিবেদেনে বলা হয়েছে, ইতালিতে প্রতিবছর পাঁচ মিলিয়ন টনের মতো খাদ্য নষ্ট হয়; এতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও পরিবারগুলোর মিলিত ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ১২ বিলিয়ন ইউরো।
এই অর্থ দেশটির জিডিপির এক শতাংশের বেশি বলে ইতালির কৃষি মন্ত্রী মোরিজিও মার্তিনা পার্লামেন্টকে জানান।
জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি বিষয়ক সংস্থার (এফএও) দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, সারা দুনিয়ায় উৎপাদিত খাদ্যের এক তৃতীয়াংশই নষ্ট হয়। ইউরোপের ক্ষেত্রে এ হার প্রায় ৪০ শতাংশ।
প্রতিবছর ইউরোপ যে পরিমাণ খাদ্য নষ্ট করে তা দিয়ে ২০ কোটি মানুষকে খাওয়ানো যায় বলে এফএও- এর সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে জানানো হয়।
বিশ্বব্যাপী নষ্ট হওয়া খাদ্যের পরিমাণ কমাতে মার্তিনো গতবছর এক্সপো মিলানোতে খাদ্য নিয়ে নতুন নীতি বাস্তবায়নের ঘোষণা দিয়েছিলেন। বুধবার পার্লামেন্টে পাস হওয়া আইনকে ওই ঘোষণার ধারাবাহিকতা হিসেবে দেখা হচ্ছে।
নতুন আইনের বিধান অনুযায়ী, কৃষকরা তাদের বিক্রি না হওয়া খাদ্য বিভিন্ন দাতব্য সংস্থায় পাঠাতে পারবেন।
এছাড়া মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার রাখার জন্য ব্যবসায়ীদের জরিমানা এবং খাবার বর্জ্য নিষ্কাশনে কর হার কমানোর কথা বলা হয়েছে আইনে।
খাবার নষ্ট করার প্রবণতা কমাতে এ আইনে সরকারের পক্ষ থেকেও জোর প্রচার চালানোর উদ্যোগ নিতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি কৃষি মন্ত্রণালয়কে এক মিলিয়ন ইউরোর নতুন এক গবেষণা কার্যক্রম শুরুর অনুমতি দেওয়া হয়েছে, যার মাধ্যমে প্রক্রিয়াজাত করা খাদ্যের গুণাগুণ অটুট রাখার নতুন নতুন পদ্ধতি উদ্ভাবনে জোর দেওয়া হবে।
খাদ্য অপচয় ও ক্ষুধা নিবৃত্তিতে এটিই ইতালিতে প্রথম পদক্ষেপ নয়। তিনমাস আগে দেশটির একটি আদালতের রায়ে বলা হয়, ক্ষুধার জ্বালায় খাবার চুরি অপরাধ নয়।

Advertisements