barca-messi.jpgপ্রস্তুতিমূলক টুর্নামেন্ট ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন্স কাপের তিন ম্যাচে কোনো গোল করতে না পারা লিওনেল মেসি কাম্প নউয়ে ফিরেই জ্বলে উঠলেন। লিওনেল মেসির দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে সাম্পদোরিয়াকে ৩-২ গোলে হারিয়ে হুয়ান গাম্পার ট্রফি জিতে নিল বার্সেলোনা। দলের হয়ে এদিন অসাধারণ খেলা মেসি জোড়া গোলের পাশাপাশি লুইস সুয়ারেজের গোলেও সহায়তা করেন।
বুধবার রাতে ম্যাচটি ৩-২ গোলে জেতে গত মৌসুমে ডাবল জেতা বার্সেলোনা। মেসি দুই গোল করা ছাড়াও লুইস সুয়ারেসের গোলে অবদান রাখেন। সাম্পদোরিয়ার গোল দুটি করেন লুইস মুরিয়েল ও আন্তে বুদিমির।
নিজেদের মাঠে ষষ্ঠদশ মিনিটে সুয়ারেস-মেসির দারুণ বোঝাপড়ায় এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার উঁচু করে বাড়ানো বল অসাধারণ ভঙ্গিমায় ওভারহেড কিকে সুয়ারেসকে বাড়ান দলের সেরা তারকা। ছয় গজ বক্সের সামনে ফাঁকায় বল পেয়ে একরকম বিনা বাধাতেই লক্ষ্যভেদ করেন গত মৌসুমে দলের সর্বোচ্চ গোলদাতা সুয়ারেস।
২১তম মিনিটে ডান দিক থেকে ইভান রাকিতিচের দেওয়া ক্রস ধরে গোলরক্ষকে কাটিয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মেসি।
দুই মিনিট পর দারুণ গোছানো এক আক্রমণে ব্যবধান কমান কলম্বিয়ার ফরোয়ার্ড মুরিয়েল।
তবে মেসির নৈপুণ্যে ৩৪তম মিনিটে ফের ব্যবধান বাড়িয়ে নেয় বার্সেলোনা। প্রায় ৩০ গজ দূর থেকে বাঁকানো ফ্রি-কিকে সামনের রক্ষণ প্রাচীরের উপর দিয়ে বাঁ পোস্ট ঘেঁষে বল জালে জড়ান পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার।
৬৬তম মিনিটে মেসির ক্রস ডি-বক্সে ফাঁকায় পেয়ে গোলরক্ষকের উপর দিয়ে শট নেন আর্দা তুরান; কিন্তু বল ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে।
৭৪তম মিনিটে মেসিকে উঠিয়ে ফরোয়ার্ড মুনির এল হাদ্দাদিকে নামান কোচ লুইস এনরিকে।
৭৭তম মিনিটে বাঁদিক থেকে জোরালো কোনাকুনি শটে ব্যবধান কমিয়ে লড়াই জমিয়ে তোলেন বসনিয়া ও হার্জেগোভিনার ফরোয়ার্ড বুদিমির।
তবে বাকি সময়ে তারা আর কোনো গোল করতে না পারায় গাম্পার ট্রফি ধরে রাখার আনন্দেই মাঠ ছাড়ে বার্সেলোনা।
গাম্পার ট্রফির গত সংষ্করণে ইতালির আরেক ক্লাব রোমাকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল বার্সেলোনা।
বার্সেলোনার প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, সাবেক খেলোয়াড় ও সভাপতি জন গাম্পারের নামানুসারে এই ট্রফির আয়োজন করে বার্সেলোনা; এবার এই ট্রফির ৫১তম সংস্করণের ফাইনাল হলো।