Phelps.jpgঅবসর ভেঙে রিও অলিম্পিকে অংশ নিতে এসেছেন মাইকেল ফেলপস। আর পুলে ঝড় তুলে একের পর এক রেকর্ড গড়ছেন। গেমসের ষষ্ঠ দিনে যুক্তরাষ্ট্রের ‘জলদানব’ এবারের আসরে চতুর্থ সোনা জিতে ২ হাজার বছর পুরোনো এক রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন! প্রাচীন অলিম্পিকে ১৬৪ খ্রিষ্টপূর্বাব্দ থেকে শুরু করে ১৫২ খ্রিষ্টপূর্বাব্দ পর্যন্ত টানা চারটি আসরে ৩টি করে মোট ১২টি ব্যক্তিগত ইভেন্টের শ্রেষ্ঠত্ব ছিল লিওনিদাস অব রোডসের। আধুনিক অলিম্পিকে ১৩টি ব্যক্তিগত সোনা জিতে সেই রেকর্ড ভেঙে দিলেন ফেলপস।
এবারের অলিম্পিকে চতুর্থ সোনাটিও ফেল্‌প্‌স জিতে নিলেন ২০০ মিটার ব্যক্তিগত মিডলেতে। সব মিলিয়ে তাঁর সোনার সংখ্যা হলো ২২টি। মোট পদকের সংখ্যা ২৬। দুটি করে ব্রোঞ্জ আর রুপাও যে আছে। তবে ফেল্‌প্‌সের ২২টি সোনার ৯টি দলীয় অর্জন, রিলে সাঁতারে পাওয়া। দ্বিতীয় খ্রিষ্টপূর্বাব্দে দলীয় লড়াইয়ের ধারণাটিই ছিল না।
গেমসের ষষ্ঠ দিন বাংলাদেশ সময় শুক্রবার সকালে ২০০ মিটার ব্যক্তিগত মিডলেতে সোনা জেতেন ফেলপস। ক্যারিয়ারে ফেলপসের মোট অলিম্পিক সোনার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২টি, আর পদকসংখ্যা ২৫টি। তবে ফেলপসের ২২টি সোনার ৯টি দলীয় অর্জন।
দ্বিতীয় খ্রিষ্টপূর্বাব্দে দলীয় লড়াই বলে কিছু ছিল না। সে সময় লিওনিদাস ১৫৪, ১৫৫, ১৫৬ ও ১৫৭তম অলিম্পিকে টানা চার আসরে ১২টি ব্যক্তিগত ইভেন্টের শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করেন। যে রেকর্ড এত দিন কেউ ভাঙতে পারেননি। ২ হাজার ১৬৮ বছর পর অবশেষে সেই রেকর্ড ভাঙলেন ফেলপস।
প্রাচীন অলিম্পিকে লিওনিদাস চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন দ্য স্তাদিওন (স্প্রিন্ট), দ্য ডাইয়ুলোস (দূরপাল্লার দৌড়) ও হপলিতোদ্রোমোস (ব্রোঞ্জের তৈরি বর্ম গায়ে দৌড়) ইভেন্টে। প্রথম দুটি ইভেন্টে অংশ নিত মূলত সে কালের ক্ষিপ্রতম লোকেরা। আর তৃতীয় ইভেন্টটা ছিল পেশীবহুল মল্লযোদ্ধাদের দাপট দেখানোর জায়গা।
এবারের অলিম্পিকে ফেলপস নিজের প্রথম সোনাটি জেতেন গেমসের দ্বিতীয় দিনে সতীর্থদের সঙ্গে ৪x১০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলেতে। চতুর্থ দিন ২০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ের সোনার পদকটা গলায় ঝুলিয়েই আবার সুইমিংপুলে নেমে সতীর্থদের সঙ্গে জেতেন ৪x২০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলের সোনা। আর সর্বশেষ ২০০ মিটার ব্যক্তিগত মিডলেতে সোনা জিতে ভেঙে দিলেন ২ হাজার বছর পুরোনো এক রেকর্ড।
তথ্যসূত্র: বিবিসি অনলাইন, হাফিংটন পোস্ট।