cumin-seeds-powderমসলা হিসেবে জিরার গুণের কথা সবারই জানা। রান্না করা খাবারকে সুস্বাদু ও সুগন্ধি করতে জিরার জুড়ি নেই। স্বাস্থ্যকর মসলা হিসেবে জিরা সমাদৃত। কিন্তু এর বাইরেও জিরার কিছু গুণ আছে। বিশেষ করে জিরা-পানি বা জিরা-চা ওজন কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।
যাঁরা প্রাকৃতিক উপায়ে ওজন কমাতে চান, তাঁদের জন্য জিরা-পানি উৎকৃষ্ট উপাদান। গবেষকেরা বলেন, শরীরের ক্ষতিকর চর্বি ও অস্বাস্থ্যকর কোলস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে ওজন কমাতে এটি সহায়তা করে।

হজম শক্তি : জিরায় আছে থাইমলসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ তেল, যা লালাগ্রন্থিকে উদ্দীপ্ত করে খাদ্য পরিপাকে সহায়তা করে। এ ছাড়া হজমপ্রক্রিয়ার দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতেও সহায়তা করে জিরা। যাঁরা এ ধরনের সমস্যায় ভুগছেন, তাঁরা জিরা-চা খেতে পারেন। কলার সঙ্গে জিরা মিশিয়ে খেলেও উপকার পাওয়া যায়। কারণ, কলাও ওজন কমাতে সহায়তা করে।

ওজন কমাতে জিরা : প্রতিদিন নিয়ম করে এক চামচ গোটা জিরা খেয়ে ফেলুন, তাতেই কমবে আপনার ওজন। তার আগে আর একটি কাজ আপনাকে করতে হবে। নিজের ওজন নিয়ে, লিখে রাখুন। ১৫ দিন পর ফের ওজন নিন। নিজেই অবাক হয়ে যাবেন। কলা দিয়ে জিরা খেলেও ওজন ঝরবে। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, গোটা জিরা খুব দ্রুত শরীর থেকে ওজন ঝরাতে সক্ষম। শুধু যে চর্বি বের করে দেয়, তা কিন্তু নয়। একই সঙ্গে অস্বাস্থ্যকর কোলেস্টেরলকে শরীর থেকে বের করে দেয়। ফলে, যারা ওজন কমানোর জন্য জিমে গিয়ে ঘাম ঝরাচ্ছেন, একবার ১৫ দিনের জন্য জিরার ওপর ভরসা রাখতে পারেন।

জিরা-চা বানানোর নিয়ম হচ্ছে এক চামচ জিরা এক গ্লাস পানির মধ্যে মিশিয়ে সেদ্ধ করতে হবে। পানি ফুটে বাদামি রং হলে জাল বন্ধ করে পাত্রটি ঢেকে রাখতে হবে। এরপর ঠান্ডা হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। হালকা পেটব্যথা কিংবা ভালো হজমের জন্য দিনে তিনবার এ চা খেতে পারেন। যাঁরা আরেকটু হালকা চা খেতে চান, তাঁরা গরম পানিতে জিরা মিশিয়ে ঢেকে রাখতে পারেন। এরপর কিছুটা থিতিয়ে সে চা খেতে পারেন। এ ছাড়া পানির ভেতর দুই চামচ জিরা মিশিয়ে সারা রাত রেখে দিতে পারেন। সকালে ওই পানি ফুটিয়ে খেতে পারেন। ভেজানো জিরা চিবিয়ে খেতে পারেন। এতেও শরীরের চর্বি দূর হবে।

ক্যানসার প্রতিরোধে : বিশেষজ্ঞরা বলেন, জিরার মধ্যে আছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা মেটাবলিজম বাড়ায় এবং পেটের চর্বি কমায়। যুক্তরাষ্ট্রের সাউথ ক্যারোলাইনার হিলটন হেড আইল্যান্ডের ক্যানসার রিসার্চ ল্যাবরেটরির তথ্য অনুযায়ী, ক্যানসারের বিরুদ্ধে লড়ার উপাদান আছে জিরাতে। এতে কুমিনঅ্যালডিহাইড নামের উপাদান আছে, যা টিউমারের বৃদ্ধি ঠেকাতে পারে। এর পটাশিয়াম শরীরের ইলেকট্রোলাইট ভারসাম্য বজায় রাখে। এটি উচ্চ রক্তচাপ কমাতেও সাহায্য করে।

জিরা-পানিতে গোসল : শরীরে তাপমাত্রা বেড়ে গেলে বা চুলকানি মনে হলে জিরা দিয়ে পানি সেদ্ধ করে তা ঠান্ডা করুন। এরপর সেই পানি দিয়ে গোসল করতে পারেন।

Advertisements

One thought on “প্রতিদিন খান জিরা, দূর করুন জটিল স্বাস্থ্য সমস্যা

  1. I just could not go away your site prior to suggesting that
    I extremely loved the usual information an individual
    provide on your guests? Is going to be again often to check up on new posts

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s