bercelonaমঙ্গলবার রাতটি বার্সেলোনার দুঃস্বপ্নের রাত হয়ে থাকবে। শেষ কবে প্রতিপক্ষের কাছে স্প্যানিশ এই ক্লাবটি এমন তুলোধুনো হয়েছে, সেটা জানাতে পরিসংখ্যানবিদদেরও খাবি খেতে হবে। মঙ্গলবার রাতে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগে ফ্রান্সের ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইর মাঠ প্রিন্স পার্কে (পার্ক ডি প্রিন্স) মুখোমুখি হয় বার্সা।
একটি-দুটি নয়, চার-চারটি গোল হজম করতে হয়েছে লুইস এনরিকের দলকে। যার দুটিই করেছেন লিওনেল মেসির আর্জেন্টাইন সতীর্থ অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া। ম্যাচের শুরু থেকেই একের পর এক আক্রমণ শানিয়ে বার্সেলোনাকে ব্যতিব্যস্ত করে রাখে পিএসজি। মঙ্গলবার বার্সেলোনার পোস্টে ১৬টি শট নেয় পিএসজি। তার ১০টিই ছিল গোলমুখে।
পিএসজির আক্রমণের মুখে একপ্রকার খেই হারায় বার্সা। শেষ দিকে বার্সেলোনার দারুণ একটি শট পিএসজির গোলরক্ষক রুখে না দিলে অন্তত একটি গোল শোধ দিতে পারত বার্সা। কিন্তু সেটা আর হয়নি। কোয়ার্টার ফাইনালে যেতে হলে দ্বিতীয় লেগে ক্যাম্প ন্যুতে কমপক্ষে ৫-০ গোলের ব্যবধানে জিততে হবে মেসি-নেইমারদের।
মঙ্গলবার ম্যাচের ১৫ মিনিটে ফ্রি কিক পায় পিএসজি। ফ্রি কিক নেন রিয়াল মাদ্রিদ থেকে পিএসজিতে আসা অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া। উপস্থিত দর্শক এবং বার্সার খেলোয়াড়দের চোখকে অবিশ্বাসের ভেলায় ভাসিয়ে বল গিয়ে জালে আশ্রয় নেয়। তার খানিকটা বাঁকানো শট গোলপোস্টের ডানপাশ দিয়ে জালে আশ্রয় নেয়। গোলরক্ষকের চেয়ে চেয়ে দেখা ছাড়া আর কোনো উপায় ছিল না (১-০)।
৪০ মিনিটে বার্সেলোনার গোলরক্ষক বল ছুড়ে দেন মাঝ মাঠে মেসির কাছে। বল দখলের লড়াইয়ে সেখান থেকে বল পেয়ে যায় পিএসজির খেলোয়াড় মার্কো ভারেত্তি। বল নিয়ে তিনি ডি বক্সের দিকে এগিয়ে যান। কিন্তু সামনে বার্সার খেলোয়াড় দেখে বল বাড়িয়ে দেন ডি বক্সের মধ্যে থাকা জুলিয়ান ড্রালাঙক্সারকে। কিছুটা সময় নেন। যখন দেখলেন বার্সার গোলরক্ষক স্টেগান সামনে এগিয়ে এসেছেন তখন ডান পায়ের জোরালো শট নেন। বল স্টেগানের পায়ের উপর দিয়ে বুলেট গতিতে জালে আশ্রয় নেয় (২-০)। ফলে ২-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিশ্রামে যায় স্বাগতিকরা।
দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করেন ডি মারিয়া। ৫৫ মিনিটে ডি বক্সের বেশ খানিকটা সামনে বল পেয়ে যান ডি মারিয়া। দু’জনকে কাটিয়ে বাম পায়ে জোড়ালো শট নেন। উচুঁ করে নেওয়া শট জালে আশ্রয় নিলে ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় পিএসজি। ৭১ মিনিটে বার্সেলোনার পরাজয়ের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকেন এডিনসন কাভানি। থমাস মেউনিয়ের বাড়িয়ে দেওয়া বল ডি বক্সে মধ্যে পেয়ে জালে জড়াতে ভুল করেননি তিনি। তাতে ৪-০ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে পিএসজি।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s