BA, Marageভারতে প্রায়ই আলোচিত হয় নানা ব্যয়বহুল বিয়ের আয়োজন। দেশটিতে চরম দারিদ্র্যের মধ্যে বাস করছেন বহু মানুষ। যেখানে একমুঠো খাবারের জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হয় সেখানে হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে বিয়ের আয়োজন সত্যিই অমানবিক। বিয়েতে এমন লাগামহীন ব্যয়ের রাশ টেনে ধরতে বিল উত্থাপন করা হয়েছে সংসদে। এটি লোকসভায় অনুমোদিত হলে ভারতীয় বিয়ে শিল্পে বড় ধরণের অপচয় রোধ সম্ভব হবে বলে মনে করা হচ্ছে।
প্রস্তাবিত বিল পাশ হলে তা শুধু বিয়ের খরচই কমাবেনা বরং বিয়েতে কতজন অতিথিকে আমন্ত্রণ জানানো যাবে এবং ব্যয়বহুল বিয়ের ওপর বড় ধরণের ট্যাক্সও ধার্য করা হবে। বিয়েতে পাঁচ লাখ রুপি মোট খরচ হলে তার ওপর ট্যাক্স হবে আরও শতকরা ১০ ভাগ। সাম্প্রতিক সময়ে কয়েকটি ব্যয়বহুল বিয়ের আয়োজন নিয়ে সমালোচনা হওয়ার পর এ ধরণের একটি বিল সংসদে উপস্থাপন করা হলো।
গত নভেম্বরে মেয়ের বিয়েতে পাঁচ দিনের অনুষ্ঠান করেছেন ভারতীয় ব্যবসায়ী ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী জি জনার্দন রেড্ডি। ধারণা করা হয়, ওই বিয়েতে খরচ হয়েছে প্রায় পাঁচশ কোটি রুপি।
ফোর্বস ম্যাগাজিন অনুযায়ী ভারতের দ্বিতীয় ধনী ব্যক্তি লক্ষ্মী মিত্তালের মেয়ের বিয়েতে ব্যয় হয়েছে আনুমানিক ৭৪ মিলিয়ন ডলার। বড় বড় ব্যবসায়ী, এমপি বা মন্ত্রীদের ছেলে-মেয়েদের বিয়েতে এমন লাগামছাড়া ব্যয় নিয়ে বেশ সমালোচনা হয়েছে।
সংসদে বিলটি নিয়ে এসেছেন এমপি রনজিত রঞ্জন। তার মতে, বিয়েটা এখন নিজের সম্পদ দেখানোর বিষয়ে পরিণত হয়েছে। এর ফলে দরিদ্র পরিবারগুলোর ওপর চাপ বাড়ছে। এক্ষেত্রে একটা ভারসাম্য দরকার। কারণ এটি সমাজের জন্য ভালো নয়।

Advertisements