26-hour-batting-cathiaএক দুই ঘণ্টা নয়, টানা ২৬ ঘণ্টা নেটে ব্যাটিং করেছেন তিনি। আর তাতেই হয়ে গেল বিশ্বরেকর্ড। ক্রিকেটের ইতিহাসে এই প্রথম কোনো নারী ক্রিকেটার এত লম্বা সময় ধরে নেটে ব্যাট করলেন। আর পেলেন গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের স্বীকৃতি। নাম তার ক্যাথিয়া উওয়ামাহোরো। তিনি রুয়ান্ডার একজন নারী ক্রিকেটার।
রুয়ান্ডার রেমেরার আমাহোরো স্টেডিয়ামে নেটে ২৬ ঘণ্টা একটানা ব্যাটিং করেন ক্যাথিয়া। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় তিনি নেটে ব্যাটিং শুরু করেন। শুক্রবার সকাল ১০টা পর্যন্ত তিনি ব্যাটিং চালিয়ে যান। তাতে নেটে ২৬ ঘণ্টা ব্যাটিং করার রেকর্ড হয়। রেকর্ড গড়ার পর ক্যাথিয়া বলেন, ‘শুরুতে আমি বেশ স্বাচ্ছন্দ্যে ব্যাট করছিলাম। কিন্তু আস্তে আস্তে আমি দুর্বল হয়ে পড়ি। তবে আমার চারপাশে অনেক লোক ছিল। তারা আমায় সমর্থন দিয়ে যাচ্ছিল। উৎসাহিত করছিল। তাদের উৎসাহ আর সমর্থন আমাকে শক্তি জোগাচ্ছিল। সে কারণেই শেষ পর্যন্ত আমি ব্যাটিং চালিয়ে যেতে পেরেছি। আমাকে বল করেছেন হেথার নাইট।’
ক্যাথিয়ার মা বলেন, ‘২০০৮ সালে ক্যাথিয়া ক্রিকেট খেলার কথা আমাকে বলে। সন্দিহান হওয়া সত্ত্বেও আমি তাকে সমর্থন দিয়েছিলাম। ক্রিকেট খেলার ক্ষেত্রে আমরা তাকে সব ধরনের সহায়তা করেছি। আজ আমি খুবই খুশি যে সে কখনো আমাকে হতাশ করেনি।’
এই রেকর্ডের মাধ্যমে তিনি রুয়ান্ডায় প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম নির্মাণের জন্য অর্থ সংগ্রহ করছেন। এই কাজে রুয়ান্ডা ক্রিকেট স্টেডিয়াম ফাউন্ডেশনও গঠন করা হয়েছে।
অবশ্য সবচেয়ে বেশি সময় ধরে নেটে ব্যাট করার রেকর্ডটিও একজন রুয়ান্ডার ব্যাটসম্যানের। নাম তার এরিক ডুসিংগিজিমানা। তিনি গেল বছরের মে মাসে নেটে ৫১ ঘণ্টা ব্যাট করেছিলেন। ১২ মাসের ব্যবধানে ২৪ বছর বসসি ক্যাথিয়া আরো একটি রেকর্ড উপহার দিলেন রুয়ান্ডার ক্রিকেটপ্রেমীদের। এরিকও অর্থ সংগ্রহের উদ্দেশ্যে ৫১ ঘণ্টা নেটে ব্যাটিং করে রেকর্ড গড়েছিলেন। তার রেকর্ডের সময় ১ মিলিয়ন ডলার সংগৃহীত হয়েছিল।
যদিও প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ম্যাচের আগে এত সময় ধরে নেটে ব্যাট করা সম্ভব নয়। তারপরও নেটে এত লম্বা সময় ধরে ব্যাট করাটা সমীহ জাগানিয়া একটি ব্যাপার। ক্যাথিয়াকে এই রেকর্ড গড়তে সহায়তা করেছেন ইংল্যান্ড নারী ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হেথার নাইট। একজন নারী ক্রিকেটারের এমন রেকর্ড নিঃসন্দেহে রুয়ান্ডার ক্রিকেটের জন্য দারুণ একটি বিষয়। এই রেকর্ড রুয়ান্ডায় ক্রিকেটকে হয়তো আরো জনপ্রিয় করে তুলতে সহায়তা করবে। বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের কাছে। কারণ, রুয়ান্ডায় ক্রিকেট এখনো অতটা জনপ্রিয় হয়ে ওঠেনি।

Advertisements