ArgentinavsBrazilদক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে শেষ ম্যাচে নিজ নিজ খেলায় জয় পেয়েছে শক্তিশালী আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল। যদিও দু’দলের জয়ের মাঝে রয়েছে বিস্তর ফারাক। কারণ উরুগুয়েকে তাদেরই মাটিতে ৪-১ ব্যবধানে উড়িয়ে দিয়েছিল সেলেকাওরা। অন্যদিকে ঘরের মাঠে চিলির বিপক্ষে ১-০ ব্যবধানের কষ্টার্জিত জয় পায় আলবেসেলিস্তারা।
দুঙ্গা পরবর্তী কোচ তিতের হাত ধরে শেষ আট ম্যাচেই জয় পেয়েছে ব্রাজিল। আর কনমেবল অঞ্চলে ১৩ ম্যাচে ৩০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থেকে ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপ প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেছে নেইমাররা। ঘরের মাঠ সাও পাওলোতে বুধবার (২৯ মার্চ) প্যারাগুয়ের বিপেক্ষে মাঠে নামছে ব্রাজিল। বাংলাদেশ সময় সকাল পৌনে সাতটায় ম্যাচটি শুরু হবে।
ইতিহাস বলছে, লাতিন অঞ্চলে বাছাইপর্বের এই ফরম্যাটটা চালু হওয়ার পর কোনো দল ২৮ পয়েন্ট পেয়েও বিশ্বকাপ খেলতে পারেনি-এমন কখনো হয়নি। প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচটা জিতে গেলে ব্রাজিলের অবস্থান আরও শক্ত হবে। অঙ্কের হিসাবে অবশ্য তারপরও একটা ফাঁক থেকে যাচ্ছে। তবে ব্রাজিল প্যারাগুয়েকে হারালে আর ওদিকে চিলি ও ইকুয়েডর হারলে এই রাউন্ডেই বিশ্বকাপ নিশ্চিত হয়ে যাবে ব্রাজিলের।
এদিকে শেষ ম্যাচে জয় পেলেও সমর্থকদের মন ভরাতে পারছে না আর্জেন্টিনা। এ দলটি যেন নিজেদেরই হারিয়ে খুঁজছে। বাছাই পর্বের তালিকায় বর্তমানে মেসিদের অবস্থান তৃতীয়। কিন্তু এই অবস্থানটা খুবই নড়বড়ে। কারণ ১৩ ম্যাচে দলটির সংগ্রহ ২২ পয়েন্ট হলেও পরের তিন দল কলম্বিয়া, ইকুয়েডর ও চিলি একেবারে গাঁ ঘেসে রয়েছে।
বুধবার বলিভিয়ার মাঠ লা পাজে মুখোমুখি হচ্ছে আর্জেন্টিনা। বাংলাদেশ সময় রাত দুইটায় মাঠে নামবে দু’দল। এ মাঠটি আবার আর্জেন্টিনা তথা সফরকারী অন্য যে কোনো দলের জন্যই দুঃস্বপ্ন। এর আগে ২০১০ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে এ মাঠেই ৬-১ গোলে হেরেছিল সে সময় দিয়েগো ম্যারাডোনার কোচিংয়ে থাকা আর্জেন্টিনা। এমন বাজে হারের পর বিশ্বকাপ জয়ী ম্যারাডোনা বলেছিলেন, প্রতিটি গোলই তার বুকে শেলের মতো বিঁধেছে।
তবে বর্তমান কোচ এদগার্দো বাউজার জন্য আশার কথা হচ্ছে, এবার বাছাইপর্বে ঠিক ছন্দে নেই বলিভিয়া। ১৩ ম্যাচে এখন পর্যন্ত পয়েন্ট মাত্র ৭, পয়েন্ট তালিকায় অবস্থান নয়ে। বিশ্বকাপে খেলার আশা বলিভিয়ার প্রায় শেষ বললেই চলে।
আর্জেন্টিনার হয়ে এ ম্যাচে প্রথম একাদশে থাকবেন না স্ট্রাইকার সার্জিও আগুয়েরো। কেননা আগের ম্যাচে নিজের সামর্থ্য প্রমাণ করতে পারেননি তিনি। পাশাপাশি দলের বেশ কয়েকজন ফুটবলার এ ম্যাচে বাদ পড়বেন। যেখানে লুকাস বিগলিয়া ও জাভিয়ার মাশ্চেরানোর মতো অভিজ্ঞ তারকারাও থাকছেন না।

চার ম্যাচ নিষিদ্ধ মেসি
চিলির বিপক্ষে ১-০ গোলে জয়ী ম্যাচে লাইন্সম্যানের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন লিওনেল মেসি। এরপর থেকেই শঙ্কার কালো মেঘ। বলিভিয়ার বিপক্ষে হয়তো বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচে খেলতে পারবেন না এই বার্সা তারকা। তবে, ওই ম্যাচের রেফারি যখন বলেছিলেন, আমি মেসিকে কোনো বাজে মন্তব্য করতে শুনিনি, তখন স্বস্তির বাতাস বয়ে গিয়েছিল আর্জেন্টাইন সমর্থকদের মাঝে।কিন্তু ভলিবিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের ঠিক কয়েক ঘণ্টা আগেই বজ্রপাতের মত আসলো খবরটি। শুধু বলিভিয়ার বিপক্ষে ম্যাচেই নয়, জাতীয় দলের হয়ে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে মোট চার ম্যাচ খেলতে পারবেন না তিনি। অর্থাৎ, মোট চার ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে মেসিকে। ফিফা ডিসিপ্লিনারি কমিটি নিয়েছে এই সিদ্ধান্ত।
২৩ মার্চ আর্জেন্টিনা নিজেদের মাটিতে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল চিলির। ওই ম্যাচে মেসির পেনাল্টি গোল থেকে কোনমতে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আর্জেন্টিনা। ম্যাচ চলাকালীনই ঝামেলা পাকান মেসি; তর্কে জড়িয়ে পড়েন লাইন্সম্যানের সঙ্গে। ফিফার নিয়ম রয়েছে, ম্যাচ রেফারির পক্ষ থেকে কোনো খেলোয়াড়ের বিসয়ে লিখিত কোনো অভিযোগ পাওয়া গেলে তার বিপক্ষে যে কোনো অ্যাকশন নিতে পারে ফিফা। এমনকি নিষিদ্ধের মত ঘটনাও ঘটতে পারে সেই খেলোয়াড়ের ভাগ্যে। এ কারণে ধারণা করা হচ্ছিল, বলিভিয়ার বিপক্ষে নিষিদ্ধ হতে পারেন মেসি।
নিষিদ্ধ হওয়ার কারণে বাংলাদেশ সময় আজ রাত ২টায় লাপাজে স্বাগতিক বলিভিয়ার বিপক্ষে মেসিকে ছাড়াই মাঠে নামতে হবে এদগার্দো বাউজার দলকে। গত ম্যাচে জিতে ২৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলে তিন নম্বর স্থানে উঠে এসেছিল আর্জেন্টিনা। আজ যদি হেরে যায়, কিংবা মেসির অনুপস্থিতিতে আর্জেন্টিনা খারাপ খেলে, তাহলে আগামী বিশ্বকাপে খেলাই তাদের জন্য শঙ্কার মুখে পড়ে যাবে।
ফিফা নিজেদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এ বিষয়ক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে লিখেছে, ‘লিওনেল মেসি ফিফা ডিসিপ্লিনারি কোড-এর (এফডিসি) ৫৭ নম্বর ধারা ভঙ করেছেন। সহকারী রেফারিকে (লাইন্সম্যান) গিনি বাজে মন্তব্য করেছেন।’
এ কারণেই মূলতঃ শাস্তি দেয়া হয়েছে মেসিকে। ফিফার সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতেই বলা হয়েছে, ‘এর ফলে মোট চারটি অফিসিয়াল। ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে তাকে। একই সঙ্গে জরিমানা করা হয়েছে ১০ হাজার সুইস ফ্রাঙ্ক। নিষেধাজ্ঞা আরোপিত হবে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে বলিভিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ থেকে। এরপর আর্জেন্টিনার পরবর্তী তিন ম্যাচও খেলতে পারবেন না তিনি।’
আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশন এবং লিওনেল মেসি- দু’জনকেই ফিফা ডিসিপ্লিনারি কমিটির সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়া হয়েছে। তবে ফিফা নিষেধাজ্ঞার বিপক্ষে আপিলের সুযোগ কোনো রাখেনি মেসির জন্য।

Advertisements