বাঁশ দিয়ে মোবাইল টাওয়ার নির্মাণ


Bamboo-Mobile-towerটেলিযোগাযোগ টাওয়ার তৈরির ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো বাঁশ দিয়ে বাংলাদেশে মোবাইলফোন টাওয়ার নির্মাণ করা হয়েছে। রাজধানীর গুলশানের একটি হোটেলে মঙ্গলবার এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানানো হয়েছে। `পরিবেশ-বান্ধব প্রযুক্তি` হিসেবে ইডটকো গ্রুপ নামে একটি টাওয়ার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সহযোগিতায় ঢাকার উত্তরা এলাকার একটি বাড়ির ছাদে পরীক্ষামূলকভাবে এই টাওয়ার স্থাপন করেছে।
বুয়েটের অধ্যাপক ড. সৈয়দ ইশতিয়াক আহমেদের নেতৃত্বে একটি দল ইস্পাতের বিকল্প হিসেবে অবকাঠামো নির্মাণের উপাদান হিসেবে বাঁশের ব্যবহারের ওপর গবেষণা করে। ড. আহমেদ গণমাধ্যমকে জানান, টেলিযোগাযোগ টাওয়ার তৈরির জন্য বাঁশ একটি ভালো পরিবেশবান্ধব এবং সহজলভ্য উপাদান হতে পারে।
গবেষণায় দেখা গেছে, কাঁচা বাঁশকে প্রক্রিয়াজাত করে এরকম টাওয়ার তৈরি করা সম্ভব। এই টাওয়ার ২১০ কিলোমিটার পর্যন্ত বাতাসের গতি সহ্য করতে পারে। সঠিক রক্ষণাবেক্ষণ করলে বাঁশের তৈরি টাওয়ার ১০ বছর পর্যন্ত টিকে থাকতে পারে। তারা বলছেন, একটি টাওয়ার তৈরি করতে সময় লাগবে মাত্র ১২ দিন। একটি টাওয়ারে সর্বোচ্চ আটটি টাওয়ার স্থাপন করা যাবে।
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, প্রথাগত টাওয়ারের বাইরে উদ্ভাবনীমূলক পরিবেশবান্ধব টাওয়ার তৈরির উদ্যোগ হিসেবে বাঁশের মতো নবায়নযোগ্য অবকাঠামো দিয়ে এই টাওয়ার তৈরি করা হয়েছে।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বলেন, বাঁশের তৈরি টাওয়ার যদি সফলতা লাভ করে, তবে দেশীয় প্রযুক্তি হিসেবে এ খাতে প্রণোদনা দেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, মুঠোফোন অপারেটরদের মূল ব্যবসা থেকে টাওয়ার তৈরির মতো সেবাগুলো আলাদা করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ জন্য টাওয়ার শেয়ারিং নীতিমালা তৈরি করা হচ্ছে।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s