asadujjuman khan (koumi)কওমির মাদ্রাসার আলেম-ওলামারা ধর্মের সঠিক শিক্ষা দিচ্ছেন বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। সেই ধারা অব্যাহত রাখতে তাঁদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মন্ত্রী। আজ শনিবার বিকেলে ময়মনসিংহের অ্যাডভোকেট তারেক স্মৃতি অডিটরিয়ামে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এ কথা বলেন। ‘কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা সনদের সরকারি স্বীকৃতি’ প্রদান করায় বিভাগীয় ওলামায়ে কেরাম ওই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘ধর্মকে নিয়ে আপনারা যে আমাদের সুশিক্ষা দিচ্ছেন, সেটা কন্টিনিউ (চালিয়ে যাওয়া) করবেন। ধর্মকে নিয়ে যারা অধর্ম করে তাদের বিরুদ্ধে আপনারা রুখে দাঁড়াবেন। ইসলাম ধর্মকে যারা জঙ্গির ধর্ম বানাচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে আপনাদের কথা বলতে হবে। ধর্মকে নিয়ে যারা ব্যবসা করছে, তাঁদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।’
আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘কওমি মাদ্রাসার স্বীকৃতি যেমন আপনাদের হৃদয়ের একটা বাসনা ছিল, সে রকম আমাদেরও আকাঙ্ক্ষা ছিল যে কওমি মাদ্রাসা স্বীকৃতি পাক।’ প্রধানমন্ত্রী কওমি মাদ্রাসার যে স্বীকৃতি দিয়েছেন, তা দ্রুত কার্যকর করা হবে বলেও জানান তিনি।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, ‘কওমি মাদ্রাসার দিকে সব সময় আঙুল তুলত যে এরাই জঙ্গি তৈরি করে। আমি দাঁড়িয়ে বললাম যে কখনই না, ইসলাম যাঁরা পছন্দ করেন, যাঁরা মুসলমান, যাঁরা ধর্মের শিক্ষা দেন, তাঁরা কোনো দিন এই কাজ করতে পারেন না। তাই আসুন আমরা ঘুরে দাঁড়াই। এই সমস্ত জঙ্গিদের বিরুদ্ধে, যারা এই কাজ করে- তাদের বিরুদ্ধে।’
ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন পুলিশের ময়মনসিংহ রেঞ্জের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান, জেলা প্রশাসক খলিলুর রহমান, পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেশামুল আলম, জাতীয় দ্বীনি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ফরিদ উদ্দিন মাসউদ, আজহার আলী আনোয়ার শাহ, আবদুল কুদ্দুস, মুফতি রুহুল আমিন, হাফেজ মাওলানা মাজহারুল ইসলাম, বড় মসজিদের খতিব আবদুল হক ও মুফতি তাজুল ইসলাম কাসেমী।

Advertisements