Real_Barcaমাত্র এক সপ্তাহ আগেও রিয়ালই লা লিগা জিতছে বলে দিয়েছেন অনেকে, সে শিরোপাই এখন আবার বার্সেলোনার হাতে শিরোপা তুলে দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা! প্রশ্নটা উঠে যাচ্ছে, এবারের লা লিগা ট্রফি কার ঘরে যাচ্ছে? টানটান উত্তেজনায় ঠাঁসা এল ক্লাসিকোটি জিতে নিয়েছে বার্সেলোনা। রিয়ালের মাঠে এল ক্লাসিকো জয় দারুণ স্বস্তি দিচ্ছে বার্সার সমর্থকদের। এই জয় যে তাদের টিকিয়ে রেখেছে শিরোপা জয়ের দৌঁড়ে। পয়েন্ট তালিকার চূড়ায় এখন বার্সেলোনা। তবে রিয়াল মাদ্রিদের হাতে এখনো এক ম্যাচ বাড়তি আছে। পা না হড়কালে, রিয়ালকে হটানোর সাধ্য নেই বার্সেলোনার। কিন্তু রিয়ালের সামনে এখন অনেকগুলো চ্যালেঞ্জ। লিগে রিয়ালের যে ছয়টি ম্যাচ বাকি, এর চারটিই প্রতিপক্ষের মাঠে। দেপোর্তিভো লা করুনিয়া, গ্রানাডা, সেল্টা ভিগো বা মালাগা—নামে-ভারে কোনো দলই ভয় জাগাচ্ছে না নিশ্চয়ই! পয়েন্ট টেবিলের ১৯ নম্বর দল গ্রানাডাকে নিয়ে দুশ্চিন্তা হয়তো না করলেও চলবে রিয়ালের।
তবে অন্য তিনটি দল নিয়ে দুশ্চিন্তায় ভোগা উচিত ‘লস ব্লাঙ্কো’দের। কারণ নিজেদের মাঠে এই তিন দলই বার্সেলোনাকে হারিয়েছে। এবার যে তারা রিয়ালকে হারিয়ে বার্সাকে শিরোপা উপহার দেবে না সে কথা কে বলবে! এর মাঝে দেপোর্তিভোর সঙ্গে ঘরের মাঠের জয়টাও এসেছিল শেষ ৮ মিনিটের মারিয়ানো-রামোস ঝলকে। লাল কার্ড দেখায় দেপোর্তিভোর বিপক্ষে সেই রামোসই থাকবে না। পেপে আর ভারানের চোট আরও দুর্বল করে রাখছে রিয়ালের রক্ষণ।
শেষ পাঁচ ম্যাচে বার্সেলোনার প্রতিপক্ষ ওসাসুনা, এস্পানিওল, ভিয়ারিয়াল, লাস পালমাস ও এইবার। এর মধ্যে ভিয়ারিয়াল পয়েন্ট টেবিলের পঞ্চম স্থানে, এইবার অষ্টম, এস্পানিওল নবম ও লাস পালমাস ত্রয়োদশ স্থানে রয়েছে।
অন্যদিকে রিয়াল মাদ্রিদের শেষ ছয় ম্যাচের প্রতিপক্ষ হল দেপোর্টিভো লা করুনিয়া, ভ্যালেন্সিয়া, গ্রানাডা, সেভিয়া, মালাগা ও সেল্টা ভিগো। এর মধ্যে সেভিয়া রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের চতুর্থ স্থানে, সেল্টা ভিগো রয়েছে দশম স্থানে, ভ্যালেন্সিয়া রয়েছে দ্বাদশ স্থানে, মালাগা চতুর্থদশ, দেপোর্টিভো লা করুনিয়া ১৬তম ও গ্রানাডা রয়েছে ১৯তম স্থানে। এর মধ্যে ভ্যালেন্সিয়া ও সেভিয়া রিয়ালের মাঠে এসে খেলবে। বাকি চারটি ম্যাচ প্রতিপক্ষের মাঠে গিয়ে খেলতে হবে রোনালদো-বেনজেমাদের। এমনকী সেল্টা ভিগোর বিপক্ষের শেষ ম্যাচটিও!
রিয়ালের সামনে লা লিগা ছাড়াও উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালের মতো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ রয়েছে। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের মতো শক্তিশালী দল। সেক্ষেত্রে বার্সেলোনার এই চাপ নেই। তারা ধ্যানেজ্ঞানে এখন কেবল লা লিগার উপরই গুরুত্বারোপ করতে পারবে। এই দিক বিবেচনায় লা লিগার শিরোপার দৌড়ে রিয়ালের চেয়ে খুব একটা পিছিয়ে নেই বার্সা। রিয়ালকে পেছনে ফেলে লা লিগার শিরোপা লুইস এনরিকের শিষ্যরা জিতে নিলে সেটা অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।
তবে এক ম্যাচ হাতে থাকা রিয়ালকে পেছনে ফেলে বার্সা যদি লিগ শেষও করে, তবে শেষ ম্যাচে সেল্টা ভিগোকে হারিয়ে শিরোপা জিতে নেওয়ার সুযোগ থাকতে পারে রিয়ালের সামনে। তবে এক্ষেত্রে জিনেদিন জিদানকে কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে। তিনি তার খেলোয়াড়দের দিয়ে কিভাবে চ্যাম্পিয়নস লিগের ট্রফি অক্ষুন্ন রাখার পাশাপাশি লা লিগার শিরোপাটাও বগলদাবা করেন সেটাই এখন দেখার বিষয়।
আশঙ্কার বিষয় হচ্ছে দুই ডালে পা দিয়ে শেষ পর্যন্ত রিয়ালের না পা হড়কায়!

Advertisements