marage, BA marriageবিয়ের খাবারের আয়োজনে গরুর মাংসের নানান পদ না থাকায় রেগে যায় পাত্রপক্ষ। অন্যান্য পদের খাবারের আয়োজন ছিল। কিন্তু লাগবে গরুর কাবাব, কোর্মা এবং বিরিয়ানি। আর কনেপক্ষ বিয়ের দিনে খাবারে তা দিতে না পারায় বর ভেঙে দেন বিয়ে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর প্রদেশের মুজাফফর নগরে। তবে বিয়ের আসরেই অন্য একজনের সঙ্গে বিয়ে হয় কনের।
এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, উত্তর প্রদেশের মুজাফফর নগরের কুলহেদী গ্রামের একটি বিয়েবাড়িতে বর আসবে বলে ছিল সব আয়োজনই। যোগী আদিত্যনাথ উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পরই অবৈধ কসাইখানা বন্ধ। আর এতে করে মাংসের দাম বাড়ছে হু হু করে। আবার পর্যাপ্ত জোগানের অভাব তো আছেই। তাই ওই রাজ্য মাংস পাওয়া একটু কঠিন হয়ে গেছে। আর বিয়েতে গরুর কাবাব, গরুর কোর্মা এবং বিরিয়ানির জন্য যত মাংস দরকার, তা আয়োজন করা কষ্টসাধ্য ব্যাপার কনেপক্ষ নাগমার পরিবারের জন্য। উপায় না দেখে কনেপক্ষ মাংসের পদ বাদে ফল-ফলাদি ছাড়াও নানা আয়োজন করেছিল। কিন্তু বর রিজওয়ান ও তাঁর পরিবারের দাবি, গরুর মাংসের কাবাব, কোর্মা এবং বিরিয়ানি। এসব পদ কেন সংগ্রহ করতে পারেনি, তার ব্যাখ্যাও রিজওয়ানদের কাছে তুলে ধরেন নাগমার পরিবার। কিন্তু বরপক্ষ অনড়, মাংসের পদ লাগবেই, এ ছাড়া বিয়ে হবে না। উপায় না দেখে বিয়ের আসরে গ্রামের মান্য-গণ্য ব্যক্তি ও পঞ্চায়েতকে ডাকেন নাগমার পরিবার। কিন্তু কিছুতেই কোনো কাজ হয়নি। বিয়ে ভেঙে দেয় পাত্রপক্ষ। কুলহেদী গ্রামে বিয়ের কারণে আনন্দ ভর করেছিল। বিয়ে ভেঙে দিয়ে বর রিজওয়ান যখন চলে গেলেন, তখন পুরো গ্রামে বিশাদের ছায়া।
এই পরিস্থিতিতে যা হয়, সে অবস্থায়ই কনেপক্ষের। এমন সময় সমস্যার সমাধানে এগিয়ে আসেন বিয়েতে আমন্ত্রিত এক যুবক। নাগমাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন তিনি। প্রস্তাবে রাজি নাগমা ও তাঁর পরিবার। সেই আসরেই বিয়ের সানাই বাজে। বলতে গেলে সিনেমা কায়দায় বিয়ের আসরের হয় ‘হ্যাপি এন্ডিং’।

Advertisements