real madridপ্রয়োজন ছিল শুধু জয়ের। অন্তত পক্ষে ড্র করলেও শিরোপা নিশ্চিত। জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা ড্রয়ের পথেই হাঁটলেন না। লা রোজালেদায় গিয়ে স্বাগতিক মালাগার বিপক্ষে ম্যাচটি খেললেন একেবারে ফাইনালের মত করে। শেষ পর্যন্ত দুই তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো এবং করিম বেনজেমার গোলে ২-০ ব্যবধানে মালাগাকে হারিয়ে লা লিগায় ৩৩তম শিরোপা ঘরে তুলে নিলো লজ ব্লাঙ্কোজরা।
২০১১-১২ মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদ শেষবারের মতো জিতেছিল লা লিগার শিরোপা। এরপর গত পাঁচ বছরে অনেক শিরোপাই উঠেছে রিয়ালের ট্রফিকেসে। দুইবার চ্যাম্পিয়নস লিগ, একবার কোপা দেল রে। উয়েফা সুপার কাপ, ক্লাব বিশ্বকাপ- কোনো শিরোপাই বাদ যায়নি। আক্ষেপ ছিল শুধু লা লিগা নিয়ে। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনা আর নগর প্রতিদ্বন্দ্বী আতলেতিকো মাদ্রিদ এই পাঁচ বছর শুধু হতাশই করেছে স্পেনের সফলতম এই ক্লাবটিকে। তবে এবারের মৌসুমে সেই আক্ষেপ দারুণভাবে ঘুঁচিয়ে দিয়েছে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। জিতে নিয়েছে লা লিগার শিরোপা।
গত চারটি মৌসুমের তিনবারই লা লিগা শিরোপা জিতেছিল বার্সেলোনা। দ্বিতীয় স্থানে ছিল রিয়াল মাদ্রিদ। এবার সেই সমীকরণটি উল্টে দিয়েছে তারা।
স্প্যানিশ লা লিগায় ৩৮ ম্যাচ খেলে ২৯টিতে জয় পেয়েছে রিয়াল। হেরেছে ৩টিতে আর ড্র করেছে ৬টি ম্যাচ। ৯৩ পয়েন্ট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েই মৌসুম শেষ করল জিনেদিন জিদানের দল। ৯০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে থেকে মৌসুম শেষ করেছে বার্সা। তৃতীয় স্থানে থাকা অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের পুঁজি ৭৮।
বেশ কয়েক দিন ধরেই দারুণ ফর্মে থাকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো লা লিগার শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচেও জ্বলে উঠেছিলেন দারুণভাবে। খেলা শুরুর মাত্র দুই মিনিটের মাথায় গোল করে এগিয়ে দিয়েছিলেন রিয়ালকে। দ্বিতীয়ার্ধে, ৫৫ মিনিটে আরেকটি গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেছিলেন রিয়ালের ফরাসি স্ট্রাইকার করিম বেনজেমা।
এবারের মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের হাতছানিও আছে রিয়াল মাদ্রিদের সামনে। এরই মধ্যে তারা পেয়ে গেছে ফাইনালের টিকিট। শিরোপা জয়ের অন্তিম লড়াইয়ে ইতালির শীর্ষ ক্লাব জুভেন্টাসকে হারাতে পারলেই শিরোপা উঠবে রিয়ালের ঘরে।
অন্যদিকে চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে আগেই ছিটকে পড়েছিল বার্সেলোনা। লা লিগার শিরোপাটাও হারাতে হলো রিয়ালের কাছে। এখন শিরোপাবিহীন মৌসুমের হতাশায় ডুবতে না চাইলে বার্সাকে জিততে হবে কোপা দেল রের শিরোপা। ফাইনালে হারাতে হবে আলাভেজকে।

Advertisements