champions trofiইংল্যান্ড ও ওয়েলসের মাটিতে দারুণ জমলেও চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ভবিষ্যৎ অন্ধকারই। আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভ রিচার্ডসন জানিয়েছেন, চ্যাম্পিয়নস ট্রফি বন্ধ করে দিয়ে দুই বছর পরপর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের পথেই থাকতে চাইছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা।
আইসিসির ভেতর থেকেই এই ভাবনাটা উঠে এসেছে। অনেকেই মনে করেন, চ্যাম্পিয়নস ট্রফি ওয়ানডে বিশ্বকাপের মতোই একটা প্রতিযোগিতা। ২০১৯ সাল থেকে ১০ দলকে নিয়ে ওয়ানডে বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে। তাই আলাদা করে ৮ দলের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি আয়োজনকে বাহুল্যই মনে হচ্ছে তাঁদের কাছে। ২০২১ সালে পরের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি ভারতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।
রিচার্ডসন জানিয়েছেন, ভবিষ্যতে ২০টি দল নিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে, ‘আমরা চাই আইসিসির প্রতিযোগিতাগুলো একটি অপরটির চেয়ে আলাদা হোক। মানুষ যেন পার্থক্য বুঝতে পারে। এতে করে প্রতিটি প্রতিযোগিতাই আলাদা আলাদা করে দর্শকদের মধ্য আগ্রহ তৈরি করতে পারবে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দলের সংখ্যা ১৬ দল থেকে ২০ দলে উন্নীত করার কথাও ভাবা হচ্ছে।’
বাণিজ্যিক দৃষ্টিকোণ থেকেও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটটা অনেক বেশি লাভজনক হওয়ায় চ্যাম্পিয়নস ট্রফি আইসিসির আগ্রহের কেন্দ্র থেকে সরে যাচ্ছে। রিচার্ডসন বলেন, ‘এটা সত্যি যে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট অনেক বেশি আগ্রহ তৈরি করছে। টেলিভিশন সম্প্রচারের ক্ষেত্রেও এটি দারুণ লাভজনক। তবে আমরা মনে করি, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট দিয়েই অনেক বেশিসংখ্যক দেশকে ক্রিকেটে আনা যাবে।’ সূত্র: এএফপি

Advertisements