অতিরিক্ত ১০০ মিলিয়ন ডলার দিয়ে ভারতকে শান্ত করল আইসিসি


icc & bcci.jpgএপ্রিলে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিসিআই) বড় ধাক্কাই দিয়েছিল আইসিসির প্রস্তাবিত নতুন আর্থিক কাঠামো। ভোটাভুটিতে হেরে যাওয়ায় আগামী আট বছরে ১৪৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় কমে যাওয়ার শঙ্কা ছিল বিসিসিআইয়ের। নানা জলঘোলার পর অবশেষে আইসিসি-বিসিসিআই পৌঁছেছে সমঝোতায়। অতিরিক্ত ১১২ মিলিয়ন ডলার দিয়ে ভারতকে শান্ত করেছে আইসিসি।
আইসিসির আগে সভায় নির্ধারিত হয়েছিল যে ভারত ২৯৩ মিলিয়ন ডলার পাবে। ভারত সেটা মানতে রাজি হয়নি। তারা ৫৭০ মিলিয়ন ডলার দাবি করেছিল। কিন্তু অন্যান্য পূর্ণ সদস্য দেশগুলোর কারণে তখন সেটা আর বাড়েনি। না বাড়ায় তখন বেশ হৈচৈ হয়েছিল।
তবে লন্ডনে চলমান আইসিসির সভায় ভারত ঠিকই আইসিসির কাছ থেকে তাদের লভ্যাংশ বাড়িয়ে নিয়েছে। বৃহস্পতিবার সভায় ভারতকে আরো ১০০ মিলিয়ন দিতে রাজি হয় আইসিসি। এরপর তার সঙ্গে আগের চুক্তি অনুযায়ী আরো ১২ মিলিয়ন যোগ করা হয় (মোট ১১২ মিলিয়ন)। সব মিলিয়ে ৪০৫ মিলিয়ন ডলার (২৯৩+১১২) আদায় করে নেয় ভারত।
দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৩৯ মিলিয়ন লভ্যাংশ পাচ্ছে ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। তাদের চেয়ে ২৬৬ মিলিয়ন ডলার বেশি পাচ্ছে ভারত। অস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কা প্রত্যেকে পাচ্ছে ১২৮ মিলিয়ন ডলার করে। জিম্বাবুয়ে পাচ্ছে ৯৪ মিলিয়ন ডলার।
আগের সভায় ভারতকে কম লভ্যাংশ দিয়ে সহযোগি দেশগুলোর ক্রিকেটের উন্নয়নে বেশি টাকা খরচ করতে চেয়েছিল আইসিসি। কিন্তু ভারত সেটাতে দ্বিমত পোষণ করেছিল। ভারতের প্রশ্ন ছিল সিঙ্গাপুরের মতো উন্নত সহযোগি দেশ কেন আইসিসির কাছ থেকে মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার অনুদান পাবে? শেষ পর্যন্ত সহযোগি দেশগুলোর অনুদানের পরিমাণ কমিয়ে ভারতকে ৪০৫ মিলিয়ন ডলার দেওয়া হচ্ছে।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s